প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

বস্ত্র খাতের ৬১% কোম্পানির ইপিএস কমেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বর) আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে  বস্ত্র খাতের তালিকাভুক্ত ৪৪ কোম্পানি। এর মধ্যে ৬১ শতাংশ বা ২৭ কোম্পানির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) আগের বছরের চেয়ে কমেছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্রমতে, পুঁজিবাজারে বস্ত্র খাতে মোট ৪৫টি কোম্পানি রয়েছে। প্রথম প্রান্তিকে ৪৪ কোম্পানি ইপিএস ঘোষণা করেছে। এর মধ্যে ইপিএস বেড়েছে ১৫টির, কমেছে ২৭টির, আগের বছরের চেয়ে শেয়ারপ্রতি লোকসান বেড়েছে এক ও লোকসান কমেছে এক কোম্পানির। প্রথম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেনি ফ্যামিলিটেক্স (বিডি) লিমিটেড।

আলোচ্য সময়ে বস্ত্র খাতের বেশি ইপিএস বেড়েছে স্টাইলক্রাফট লিমিটেডের। কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৯ টাকা ৩৯ পয়সা। ইপিএস হয়েছে ১৬ টাকা ৫৮ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময়ে ছিল সাত টাকা ১৯ পয়সা। আর দেশ গার্মেন্টস লিমিটেডের ইপিএস হয়েছে দুই টাকা ৫২ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল ৮৯ পয়সা। ইপিএস বেড়েছে এক টাকা ৬৩ পয়সা। অন্যদিকে দ্য ঢাকা ডায়িং অ্যান্ড ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানির ইপিএস আগের বছর ৩৭ পয়সা থাকলেও এ বছর প্রথম প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ৮০ পয়সা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস কমেছে এক টাকা ১৭ পয়সা। অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের শেয়ারপ্রতি লোকসান  হয়েছে ৩৮ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ইপিএস ছিল ৪৭ পয়সা। তাল্লু স্পিনিং মিলসের আগের বছর ইপিএস ৪০ পয়সা থাকলেও চলতি বছর শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ২০ পয়সা।

মতিন স্পিনিং মিলসের ইপিএস হয়েছে ৪৪ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল এক টাকা তিন পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস কমেছে ৫৯ পয়সা। মোজাফফর হোসেন স্পিনিং মিলসের ইপিএস হয়েছে ৪০ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল ৮৫ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস কমেছে ৪৫ পয়সা। এইচআর টেক্সটাইল লিমিটেডের ইপিএস হয়েছে ২৩ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল ৫৮ পয়সা।

অর্থাৎ  ইপিএস কমেছে ৩৫ পয়সা। রিজেন্ট টেক্সটাইলস মিলস লিমিটেডের ইপিএস হয়েছে ২৮ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল ৪৫ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস কমেছে ১৭ পয়সা। সিএমসি কামাল টেক্সটাইল মিলসের ইপিএস হয়েছে ৪৪ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল ২৯ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস বেড়েছে ১৫ পয়সা। মালেক স্পিনিং মিলস লিমিটেডের ইপিএস হয়েছে ২০ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল ৩২ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস বেড়েছে ১২ পয়সা। ড্রাগন সোয়েটার অ্যান্ড স্পিনিং লিমিটেডের ইপিএস হয়েছে ৬২ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল ৫১ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস বেড়েছে ১১ পয়সা।

মিথুন নিটিং অ্যান্ড ডায়িং লিমিটেডের ইপিএস হয়েছে ৬৫ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল ৮২ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস কমেছে ১৭ পয়সা।

জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশনস লিমিটেডের ইপিএস হয়েছে ১৩ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল ১৮ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস কমেছে পাঁচ পয়সা।

সিঅ্যান্ডএ টেক্সটাইলস লিমিটেডের ইপিএস হয়েছে ২৫ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল ৫০ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস কমেছে ২৫ পয়সা।

মিথুন নিটিং অ্যান্ড ডায়িং লিমিটেডের ইপিএস হয়েছে ৬৫ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল ৮২ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস কমেছে ১৭ পয়সা।

তাছাড়া, ম্যাকসন স্পিনিং মিলস লিমিটেডের ইপিএস বেড়েছে ৯ পয়সা। রহিম টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের ইপিএস কমেছে ২৩ পয়সা। শাশা ডেনিম লিমিটেডের ইপিএস বেড়েছে পাঁচ পয়সা। তুং-হাই নিটিং অ্যান্ড ডায়িং লিমিটেডের ইপিএস কমেছে ১২ পয়সা। আরএন স্পিনিং মিলস লিমিটেডের শেয়ারপ্রতি লোকসান  হয়েছে ৪০ পয়সা। মেট্রো স্পিনিং লিমিটেডের শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ৯ পয়সা। সোনারগাঁও টেক্সটাইল লিমিটেডের শেয়ারপ্রতি লোকসান কমেছে সাত পয়সা।

দুলামিয়া কটন স্পিনিং মিলস লিমিটেডের শেয়ারপ্রতি লোকসান বেড়েছে ৯ পয়সা। স্কয়ার টেক্সটাইল মিলসের ইপিএস কমেছে ১৫ পয়সা। সিমটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ইপিএস কমেছে ১৫ পয়সা। আলহাজ্ব টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের ইপিএস কমেছে তিন পয়সা। আনলিমা ইয়ার্ন ডায়িং লিমিটেডের ইপিএস বেড়েছে দুই পয়সা। এপেক্স স্পিনিং অ্যান্ড নিটিং মিলসের ইপিএস কমেছে এক পয়সা। আরগন ডেনিমস লিমিটেডের ইপিএস বেড়েছে দুই পয়সা। ডেল্টা স্পিনিং লিমিটেডের ইপিএস কমেছে পাঁচ পয়সা। এনভয় টেক্সটাইলস লিমিটেডের ইপিএস কমেছে চার পয়সা। ইভিন্স টেক্সটাইল লিমিটেডের ইপিএস কমেছে ছয় পয়সা। ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডায়িং ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ইপিএস বেড়েছে পাঁচ পয়সা। হামিদ ফেব্রিকস লিমিটেডের ইপিএস কমেছে ১০ পয়সা। হা-ওয়েল টেক্সটাইলস (বিডি) লিমিটেডের ইপিএস বেড়েছে চার পয়সা। মডার্ন ডায়িং অ্যান্ড স্ক্রিন প্রিন্টিং মিলস লিমিটেডের ইপিএস কমেছে তিন পয়সা। প্রাইম টেক্সটাইল স্পিনিং মিলসের ইপিএস বেড়েছে চার পয়সা। প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল লিমিটেডের ইপিএস বেড়েছে সাত পয়সা। সাফকো স্পিনিং মিলস লিমিটেডের ইপিএস বেড়েছে তিন পয়সা। সায়হাম কটন মিলস লিমিটেডের ইপিএস হয়েছে ২৬ পয়সা। সায়হাম টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের ইপিএস বেড়েছে চার পয়সা। তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ইপিএস কমেছে ছয় পয়সা। জাহিন স্পিনিং লিমিটেডের ইপিএস কমেছে ৯ পয়সা। জাহিনটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ইপিএস কমেছে এক পয়সা।