প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

বহুজাতিক কোম্পানি তালিকাভুক্তিতে ব্যবস্থা নিতে পরামর্শ বাণিজ্যমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজারে বহুজাতিক কোম্পানিগুলোকে তালিকাভুক্ত করতে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনকে (বিএসইসি) আহ্বান জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেন, ‘তারা এদেশে ব্যবসা করবে, মুনাফা কুড়াবে, কিন্তু এদেশীয় বিনিয়োগকারীদের কিছুই দেবে নাÑএটা তো হবে না।’

গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (আইডিইবি) মিলনায়তনে অনলাইন বিজনেস নিউজপোর্টাল অর্থসূচক আয়োজিত তিন দিনব্যাপী ক্যাপিটাল মার্কেট এক্সপো-২০১৬-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, যেসব মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানি সফলভাবে বাংলাদেশে ব্যবসা করছে, তাদের ক্যাপিটাল মার্কেটে আনতে হবে। ক্যাপিটাল মার্কেটকে স্থিতিশীল রাখতে বর্তমান সরকার সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। মার্কেটের লেনদেনও এখন সন্তোষজনক ও স্থিতিশীল।

মন্ত্রী আরও বলেন, বিনিয়োগ করলে যাতে কোনো বিনিয়োগকারী ক্ষতিগ্রস্ত না হন, এর নিশ্চয়তা দিতে হবে। পুঁজিবাজার স্থিতিশীল না রাখলে বিনিয়োগকারীরা এগিয়ে আসবেন না। বাংলাদেশ ব্যাংক পুঁজিবাজারবান্ধব নীতি গ্রহণের ফলে বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফিরে এসেছে এবং বিনিয়োগ বাড়ছে।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, যারা একসময় বাংলাদেশকে তলাবিহীন ঝুড়ি বলেছিলেন, আজ তারাই বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রশংসা করছেন। বিশ্বনেতারা বাংলাদেশের উন্নয়নের গল্প শুনতে চান। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতিকে একটি স্বাধীন দেশ দিয়ে গেছেন। তিনি শূন্য হাতে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহণ করেছিলেন। তাকে অর্থনৈতিক মুক্তির কাজ শেষ করতে দেওয়া হয়নি। আজ তারই সুযোগ্যা কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি বাংলাদেশকে ডিজিটাল এবং মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি দিয়ে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহণ করেছিলেন। ডিজিটাল বাংলাদেশ আজ স্বপ্ন নয়, বাস্তব। ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ একটি মধ্যম আয়ের দেশে হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে।

ক্যাপিটাল মার্কেট এক্সপো প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সবার জন্য খোলা থাকবে। এক্সপোতে প্রবেশের জন্য কোনো টিকিটের প্রয়োজন হবে না। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ, চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জ, সিডিবিএলসহ ৪৪টি প্রতিষ্ঠান এবারের এক্সপোতে অংশ নিয়েছে।

অর্থসূচক সম্পাদক জিয়াউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ  অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান ড. এম খায়রুল হোসেন। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্যবস্থাপনা পরিচালক কেএএম মাজেদুর রহমান, ডিএসই ব্রোকারস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আহমেদ রশীদ লালী, মার্সেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ছায়েদুর রহমান।