Print Date & Time : 17 April 2021 Saturday 1:37 am

বাংলা আমার মায়ের ভাষা

প্রকাশ: February 23, 2021 সময়- 12:39 am

কাজী সালমা সুলতানা: ১৯৭০ সালের ১ মে বাংলা একাডেমির পরিচালককে কমিশনের সদস্যরূপে ১০ জনের নাম প্রস্তাব করার জন্য অনুরোধ করা হয়। সেই পরিপ্রেক্ষিতে তদানীন্তন বাংলা একাডেমির পরিচালক আট বাঙালি বুদ্ধিজীবীর নাম সুপারিশ করে পাঠান। তাদের মধ্যেÑ১. ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রধান প্রফেসর মুনীর চৌধুরী, ২. চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রধান প্রফেসর সৈয়দ আলী আহসান, ৩. রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রধান ড. মযহারুল ইসলাম, ৪. রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের প্রধান জিল্লুর রহমান সিদ্দিকী, ৫. বাংলা উন্নয়ন বোর্ডের প্রাক্তন আবদুল্লাহ আল মুতী শরফুদ্দীন, ৬. চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. এটিএম আনিসুজ্জামান, ৭. ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের প্রধান ড. খান সারওয়ার মুর্শিদ ও ৮. বাংলা একাডেমির পরিচালক প্রফেসর কবীর চৌধুরী। কিন্তু এই কমিশন কাজ শেষ করার আগেই ১৯৭১ সালে বাঙালিরা আরেক রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে। সে আন্দোলন ছিল স্বাধীনতার আন্দোলন, মুক্তির আন্দোলন, স্বাধিকার অর্জনের আন্দোলন। ১৯৭১-এর মার্চ থেকে ৯ মাসব্যাপী চলে সেই প্রচণ্ড রক্তক্ষয়ী জনযুদ্ধ। সারা দেশের সব প্রান্তে চলে পশ্চিম পাকিস্তানি সেনাদের নির্মম নির্যাতন ও গণহত্যা। এ যুদ্ধে ৩০ লাখ বাঙালির জীবন ও পাঁচ লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত হয় স্বাধীনতা। স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশে ১৯৭২ সালের ৪ নভেম্বর বাংলাদেশ গণপরিষদ কর্তৃক গৃহীত গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের ৩ অনুচ্ছেদে ঘোষণা দেয়া হয়, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের রাষ্ট্রভাষা হইবে বাংলা। ১৯৪৭ সালে বাংলা ভাষাকে কেন্দ করে পশ্চিম পাকিস্তানবিরোধী আন্দোলন গড়ে ওঠে। ১৯৫২ সালে তা বিস্ফোরিত হয় ভাষা আন্দোলনে তারই ধারাবাহিকতায় স্বাধীনতার সংগ্রামের মাধ্যমে জš§ নেয় বাংলা ভাষাভিত্তিক রাষ্ট্র বাংলাদেশ।