বাগদাদের গ্রিন জোনে আবার রকেট হামলা

শেয়ার বিজ ডেস্ক: আবার ইরাকের রাজধানী বাগদাদের নিরাপদ এলাকা ‘গ্রিন জোন’-এ রকেট হামলা চালানো হয়েছে। এতে দুই শিশুসহ তিনজন আহত হয়েছেন। যারা আহত হয়েছেন, তাদের মধ্যে একজন নারী, একটি মেয়ে শিশু ও একটি ছেলে শিশু। গতকাল দেশটির সবচেয়ে নিরাপদ এলাকায় এ হামলা চালানো হয়। খবর: রয়টার্স।

একটি স্কুলে রকেট আঘাত হেনেছে। আর দুটি রকেট পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস এলাকায়। দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। তবে এ হামলার কেউ দায় স্বীকার করেনি।

এ হামলায় যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বাগদাদের গ্রিন জোনে গুরুত্বপূর্ণ কিছু ভবন রয়েছে। এসব ভবনের মধ্যে রয়েছে সংসদ ভবন ও সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কার্যালয়। এ জোনো বিদেশি দূতাবাসগুলো অবস্থিত।

সম্প্রতি ইরাকে সহিংসতা বেড়েছে। ইরাকে অবস্থানরত মার্কিন সেনাদের ও গুরুত্বপূর্ণ স্থান লক্ষ্য করে সম্প্রতি রকেট ও ড্রোন হামলা চালানো হচ্ছে। এসব হামলার ঘটনা কেউ স্বীকার করছে না। তবে হামলার জন্য সন্দেহের আঙুল তোলা হচ্ছে ইরানপন্থিদের দিকে।

এ হামলার নিন্দা জানানো হয়েছে ইরাকে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের পক্ষ থেকে। ফেসবুকে দেয়া এক বিবৃতিতে দূতাবাস বলেছে, ইরাকের সার্বভৌমত্ব, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও নিরাপত্তা ধ্বংসের চেষ্টা করছে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী।

গত বছর ১৯ ডিসেম্বর ইরাকের নিরাপত্তা বাহিনী জানায়, লক্ষ্য করে দুটি রকেট ছোড়া হয়েছে। একটি রকেটকে আকাশে থাকা অবস্থায় সি-র‌্যাম ডিফেন্স ব্যাটারির মাধ্যমে ভূপাতিত করা হয়। এটি যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের কাছে পড়েছে। অন্যটি দূতাবাস থেকে ৫০০ মিটার দূরে ভূমিতে পড়ে। এতে দুটি গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। দুটিই কাতিউশা রকেট বলে বিবৃতিতে বলা হয়েছে। এ এলাকার নিরাপত্তা নিয়ে যেন প্রশ্ন তোলা না হয়, সেজন্য দেশটির একটি নিরাপত্তা সূত্র জানিয়েছে, দুটি রকেটই আকাশে থাকা অবস্থায় গুলি করে ভূপাতিত করা হয়।

এর আগের মাস অক্টোবরেও এ এলাকায় দেশটির প্রধানমন্ত্রী মুস্তাফা আল-খাদিমিকে লক্ষ্য করে বোমা হামলা করা হয়। এসব হামলার দায় নিয়ে স্বীকারোক্তি কমই পাওয়া গেছে। তবে হামলার জন্য স্থানীয় জঙ্গি গোষ্ঠীগুলোর সঙ্গে ইরানের সম্পৃক্ততা রয়েছে বলে দাবি করে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। বাগদাদে অবস্থিত মার্কিন দূতাবাস কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে বলেছে, সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলো ইরাকের নিরাপত্তা, সার্বভৌমত্ব এবং আন্তর্জাতিক সম্পর্ককে ক্ষুন্ন করার চেষ্টা করছে। দূতাবাসের সির‌্যাম প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা রকেটগুলোতে প্রতিহত করার কথাও জানান তিনি।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন   ❑ পড়েছেন  ৯৫৬  জন  

সর্বশেষ..