বাণিজ্য সংবাদ

বাজারে মানসম্মত লুব্রিক্যান্টসের চাহিদা বাড়ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম: আশির দশকে আগ পর্যন্ত দেশে সব ধরনের লুব্রিক্যান্টস সামগ্রী বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি) আমদানি করত এবং বিপিসি’র সহযোগী প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বিপণন করত; যা পুরোনো কারখানায় উৎপাদিত বা আমদানিকৃত পণ্য বহুজাতিক কোম্পানির ব্র্যান্ডের মোড়কে বাজারজাত হয়ে আসছে। কিন্তু নতুন প্রযুক্তিতে উৎপাদন না হওয়ায় এসব ব্র্যান্ড বাজারের স্থায়ী হয়নি। অন্যদিকে মুক্তবাজার অর্থনীতির কারণে উম্মুক্ত আমদানির আড়ালে ব্যাপকহারে বিদেশি ব্র্যান্ডের লুব্রিক্যান্টস বাজারে ছড়িয়ে পড়ে। ফলে স্থানীয় শিল্প মানসম্মত লুব্রিক্যান্টসের ব্যবহার নিশ্চিত হয়নি। তবে বাজারের মানসম্মত লুব্রিকেন্টসের চাহিদা তৈরি হচ্ছে। গতকাল চট্টগ্রামের হোটেল আগ্রাবাদে আয়োজিত এক আন্তর্জাতিক সেমিনার বক্তারা এসব কথা বলেন।

লুব-রেফ (বাংলাদেশ) লিমিটেডের (বিএনও লুব্রিক্যান্টস) উদ্যোগে দিনব্যাপী ‘আইএমও ২০২০-এর চ্যালেঞ্জ এবং জ্বালানি উৎপাদনে ন্যানোটেকনোলজির ব্যবহার’ শীর্ষিক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানের প্রথমার্ধে আইএমও ২০২০-এর চ্যালেঞ্জ এবং জ্বালানি তেলের সালফারের পরিমাণ নিঃসরণে (৩.৫% থেকে ০.৫%) স্ক্রাবার সিস্টেমের কার্যকারিতা তুলে ধরেন এফএমএস সিঙ্গাপুর পিটিই লিমিটেডের সাউথ-ইস্ট এশিয়া রিজিওনাল ডিরেক্টর শেল শ্নুডাস এবং হেড অব সেলস সাপোর্ট (জাপান) পেট্রিক আং। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয়ার্ধে লুব্রিকেন্টে নতুন প্রযুক্তি হিসেবে ন্যানোটেকনোলজির কার্যকারিতা ও উপকারিতা সম্পর্কে নিজ নিজ প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সুইডেন এবি ন্যানোটেকনোলজিসের ম্যানেজিং ডিরেক্টর তানিয়া ইলিচ এবং ইকরা পাওয়ার লিমিটেডের চেয়ারম্যান মাহবুব মোর্শেদ।

এছাড়া বিএনও লুব্রিক্যান্টসের মেরিন সেক্টরের পণ্যগুলোয় ন্যানোটেকনোলজির সংযোজন ও এর উপকারিতা সম্পর্কে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন লুব-রেফ (বাংলাদেশ) লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার (টেকনিক্যাল) ড. খন্দকার জাকির হোসাইন। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন লুব-রেফ বাংলাদেশ লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর মোহাম্মাদ ইউসুফ।

উল্লেখ্য, লুব-রেফ (বাংলাদেশ) লিমিটেড বাংলাদেশে একাধারে ন্যানোল-এর পরিবেশক এবং এফএমএসআই’র এজেন্ট হিসেবে কাজ করছে।

সর্বশেষ..