দিনের খবর শেষ পাতা

বাজেটে তামাক-কর ও দাম বাড়ানোর জন্য ৩৩৬ এমপিকে চিঠি

নিজস্ব প্রতিবেদক: জনস্বাস্থ্য সুরক্ষা ও রাজস্ব আয় বাড়াতে আসন্ন ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে সিগারেটসহ সব তামাকপণ্যে সুনির্দিষ্ট করারোপের মাধ্যমে মূল্যবৃদ্ধি এবং প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী তামাকমুক্ত বাংলাদেশ ২০৪০ গঠনে একটি শক্তিশালী তামাক শুল্কনীতি প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের জন্য ৩৩৬ সংসদ সদস্যকে চিঠি চিয়েছে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন (ডাম)। সম্প্রতি ডামের সভাপতি কাজী রফিকুল আলম স্বাক্ষরিত এ চিঠি দেয়া হয়।

সব সংসদ সদস্যকে আলাদাভাবে দেয়া এই চিঠিতে বলা হয়, ২০০৯ সাল থেকে বর্তমান সরকারের ধারাবাহিকতায় ব্যাপক আর্থসামাজিক উন্নয়নের পাশাপাশি তামাক নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমও জোরদার করা হয়েছে। সরকারের তামাকবিরোধী নানা কার্যক্রমের ফলে তামাক ব্যবহার ২০০৯ সালের তুলনায় ২০১৭ সালে ১৮ দশমিক পাঁচ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। স্বল্প সময়ে তামাকের এ ব্যবহার হ্রাস সরকারের সাফল্যের স্বাক্ষর বহন করে। কিন্তু বাংলাদেশে এখনও প্রায় তিন কোটি ৭৮ লাখ প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ তামাক (ধূমপান ও ধোঁয়াবিহীন) ব্যবহার করেন। ধূমপান না করেও প্রায় তিন কোটি ৮৪ লাখ প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ পাবলিক প্লেস, কর্মক্ষেত্র ও পাবলিক পরিবহনে পরোক্ষ ধূমপানের শিকার হন (গ্যাটস ২০১৭)।

তামাক ব্যবহারের কারণে বাংলাদেশে প্রতি বছর এক লাখ ৬১ হাজারের বেশি মানুষ মারা যায় (টোব্যাকো অ্যাটলাস, ২০২০)। এছাড়া ২০১৭-১৮ অর্থবছরে তামাক ব্যবহারের অর্থনৈতিক ক্ষতির (চিকিৎসা ব্যয় ও উৎপাদনশীলতা হারানো) পরিমাণ ছিল ৩০ হাজার ৫৬০ কোটি টাকা। চিঠিতে আসন্ন ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে তামাক-কর ও দাম বাড়ানোর জন্য তিনটি প্রস্তাব রাখা হয়।

প্রথমত, সব সিগারেট ব্রান্ডে অভিন্ন করভারসহ (সম্পূরক শুল্ক চূড়ান্ত খুচরা দামের ৬৫ শতাংশ) মূল্যস্তরভিত্তিক সুনির্দিষ্ট এক্সাইজ (সম্পূরক) শুল্ক প্রচলন করা। অর্থাৎ নি¤œ স্তরে প্রতি ১০ শলাকা সিগারেটের খুচরা দাম ৫০ টাকা নির্ধারণ করে ৩২ দশমিক ৫০ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্কারোপ করা। পাশাপাশি মধ্যম স্তরে প্রতি ১০ শলাকা সিগারেটের খুচরা দাম ৭০ টাকা নির্ধারণ করে ৪৫ দশমিক ৫০ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্কারোপ ও উচ্চ স্তরে প্রতি ১০ শলাকা সিগারেটের খুচরা দাম ১১০ টাকা নির্ধারণ করে ৭১ দশমিক ৫০ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্কারোপ করা। একই সঙ্গে প্রিমিয়াম স্তরে প্রতি ১০ শলাকা সিগারেটের খুচরা ১৪০ টাকা নির্ধারণ করে ৯১ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্কারোপ করা।

দ্বিতীয়ত, ফিল্টারযুক্ত ও ফিল্টারবিহীন বিড়িতে অভিন্ন করভারসহ (সম্পূরক শুল্ক চূড়ান্ত খুচরা দামের ৪৫ শতাংশ) সুনির্দিষ্ট এক্সাইজ (সম্পূরক) শুল্ক প্রচলন করা। অর্থাৎ ফিল্টারবিহীন ২৫ শলাকা বিড়ির খুচরা দাম ২৫ টাকা

নির্ধারণ করে ১১ দশমিক ২৫ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্কারোপ ও ফিল্টারযুক্ত ২০ শলাকা বিড়ির খুচরা পর্যায়ে ২০ টাকা নির্ধারণ করে ৯ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্কারোপ করা।

তৃতীয়ত, জর্দা এবং গুলের কর ও দাম বাড়ানোসহ সুনির্দিষ্ট এক্সাইজ (সম্পূরক) শুল্ক প্রচলন করা। অর্থাৎ প্রতি ১০ গ্রাম জর্দার খুচরা দাম ৪৫ টাকা নির্ধারণ করে ২৭ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্কারোপ (৬০ শতাংশ) ও প্রতি ১০ গ্রাম গুলের খুচরা দাম ২৫ টাকা নির্ধারণ করে ১৫ টাকা সুনির্দিষ্ট সম্পূরক শুল্কারোপ (৬০ শতাংশ) করা।

আগামী বাজেট অধিবেশনে তামাকপণ্যে সুনির্দিষ্ট করারোপের মাধ্যমে দাম বাড়াতে সমর্থন করা ও অর্থমন্ত্রীর প্রতি অফিশিয়াল প্রস্তাবনা পত্র (ডিও লেটার) দিতে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের সভাপতি কাজী রফিকুল আলম সংসদ সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানান।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন
ট্যাগ ➧

সর্বশেষ..