বিশ্ব সংবাদ

বাণিজ্য ইস্যুতে তুরস্কের সঙ্গে আলোচনায় মরক্কো

শেয়ার বিজ ডেস্ক:দুদেশের মধ্যে মুক্তবাণিজ্য চুক্তির বিষয়ে তুরস্কের সঙ্গে নতুন করে আলোচনা শুরুর কথা জানিয়েছে মরক্কো। আঙ্কারার সঙ্গে বার্ষিক প্রায় ২০০ কোটি ডলারের বাণিজ্য ঘাটতি কমিয়ে নিয়ে আসতে ব্যর্থ হওয়ায় এ আলোচনা শুরু করছে দেশটি। উত্তর আফিকার দেশটির বাণিজ্যমন্ত্রী এ তথ্য জানিয়েছেন। খবর: রয়টার্স।

রাবাতে তুরস্কের বাণিজ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনার পর মরক্কোর বাণিজ্যমন্ত্রী মৌলাই হাফিদ এলালামি জানান, মরক্কোর শিল্প খাতে আরও বিনিয়োগের মাধ্যমে বাণিজ্যে ভারসাম্য আনতে দুই পক্ষই সম্মত হয়েছে। এছাড়া তুরস্কে রফতানি আরও বাড়ানোর বিষয়েও ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

আগামী ৩০ জানুয়ারির মধ্যে দুই পক্ষের মধ্যকার বাণিজ্য চুক্তির ক্ষেত্রে সংশোধনী করতে দুই পক্ষই চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছাবে বলে আশা করছে। মরক্কোর চাকরি হারানোর শঙ্কা কমিয়ে নিয়ে আসতে এ পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আরও ভারসাম্যপূর্ণ ও তাৎপর্যবাহী চুক্তিতে পৌঁছানোর ক্ষেত্রে আমরা উভয় পক্ষই একমত হয়েছি। তবে এ ব্যাপারে তুরস্কের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো বক্তব্য দেওয়া হয়নি।

চলতি সপ্তাহের শুরুতে পার্লামেন্টে মরক্কোর বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাণিজ্য সংশোধনী চুক্তিতে পৌঁছানো না গেলে মুক্তবাণিজ্য সমঝোতা ভেঙে পড়তে পারে। এছাড়া মরক্কোর আরও ৫৫টি চুক্তির বিষয়েও নতুন করে ভাবা দরকার বলে উল্লেখ করেন তিনি। তুরস্কের কিছু খাদ্যপণ্য ও পরিধেয় বিক্রেতা খারাপ প্রতিযোগিতায় লিপ্ত বলে অভিযোগ তোলেন মরক্কোর সংসদ সদস্যরা। দেশটিতে মুক্তবাণিজ্য চুক্তির আলোকে পণ্যগুলো বিক্রি করা হয়। মরক্কো চেম্বার অব কমার্স গ্রুপের প্রধান ওমর মোরো মনে করেন, বিদ্যমান চুক্তিটি মরক্কোর টেক্সটাইল শিল্পের জন্য ক্ষতিকর। বিদায়ী বছরের প্রথম ১১ মাসে মরক্কোর সার্বিক বাণিজ্য ঘাটতি দুই দশমিক তিন শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ১৯ হাজার ১৮০ কোটি দিরহাম বা দুই হাজার কোটি ডলারে দাঁড়িয়েছে। ২০১৮ সালের একই সময়ের তুলনা করে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..