বিশ্ব বাণিজ্য

বাণিজ্য বিরোধ নিরসনে আলোচনার দরজা খোলা যুক্তরাষ্ট্রের

ইইউ’র পণ্যেশুল্কারোপ

শেয়ার বিজ ডেস্ক:গত শুক্রবার থেকে ফরাসি উড়োজাহাজ নির্মাতা কোম্পানি এয়ারবাস, ও ওয়াইন এবং স্কটিশ হুইস্কিসহ ইউরোপের ৭৫০ কোটি ডলারের পণ্যে আমদানি শুল্কারোপ কার্যকর করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ফরাসি অর্থমন্ত্রী ব্রুনো লো মেয়ার এদিন সতর্ক করে বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের এ পদক্ষেপের গুরুতর পরিণতি ঘটবে। তবে এর কয়েক ঘণ্টা পরই তিনি বলেছেন, ওয়াশিংটন শুল্ক নিরসনে আলোচনার দরজা খোলা রেখেছে। আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের মার্কিন বাণিজ্য প্রতিনিধি রবার্ট লাইথিজারের সঙ্গে সাইডলাইন বৈঠকের পর তিনি এ তথ্য জানান।  ফরাসি প্রেসিডেন্ট বলেন, এ আলোচনা যতটা সম্ভব বিস্তৃত হওয়া দরকার। আর যত তাড়াতাড়ি হয় ততই ভালো। খবর: এএফপি।

পাল্টা প্রতিক্রিয়ার হুমকি সত্ত্বেও ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) রেকর্ড ৭৫০ কোটি ডলার সমমূল্যের পণ্যে শুল্কারোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। শুল্কারোপের এ তালিকায় ফরাসি উড়োজাহাজ নির্মাতা কোম্পানি এয়ারবাস, ফরাসি ওয়াইন ও স্কটিশ হুইস্কি রয়েছে। ওয়াশিংটনে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার মধ্যরাতের পর এ শুল্ক বাস্তবায়ন করা হয়েছে। শুল্কারোপ নিয়ে আলোচনায় ইউরোপীয় কর্মকর্তা ও মার্কিন বাণিজ্য প্রতিনিধিরা শেষ মুহূর্তে কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণে ব্যর্থ হওয়ার পর এ পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করা হলো।

এদিকে বেইজিংয়ের সঙ্গে ওয়াশিংটনের বাণিজ্যযুদ্ধ চলার মধ্যেই ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এ আক্রমণাত্মক সিদ্ধান্ত বিশ্ববাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) সমর্থন পেয়েছে। এ পদক্ষেপে বৈশ্বিক অর্থনীতি আরও অস্থিতিশীল হয়ে পড়ার ঝুঁকি সৃষ্টি হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের শুল্কারোপের লক্ষ্য হলো ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি ও স্পেনের বেসামরিক বিমান। ফলে এখন থেকে যুক্তরাষ্ট্রে আমদানির সময় উড়োজাহাজের জন্য অতিরিক্ত ১০ শতাংশ ব্যয় করতে হবে। মূলত এয়ারবাস গড়ে তোলার পেছনে এ দেশগুলোর ভূমিকা রয়েছে।

তবে এর বাইরে ফরাসি ওয়াইনের মতো বেশকিছু ভোগ্যপণ্যও শুল্কারোপের তালিকায় রয়েছে। সাম্প্রতিক মাসগুলোয় পণ্যটি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে এসেছেন ট্রাম্প। ফ্রান্স, স্পেন ও জার্মানির ওয়াইনের ওপর ২৫ শতাংশ আমদানি শুল্কারোপ করা হয়েছে।

ইউরোপীয়রা দীর্ঘদিন ধরেই বিরোধের বিষয় নিয়ে আলোচনার পক্ষে কথা বলে আসছে। মার্কিন উড়োজাহাজ নির্মাতা কোম্পানি বোয়িংকে ভর্তুকি দেওয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে শাস্তি দিতে আগামী বছর থেকে শুল্কারোপ করতেও সক্ষম ইউরোপ। কিন্তু এরই মধ্যে চলতি বছরের জুলাইয়ে ইইউ কর্মকর্তারা উড়োজাহাজ নির্মাতাদের ভর্তুকি স্থগিত করার প্রস্তাব দেন। যেখানে উভয় পক্ষকেই নিজেদের ত্রুটি স্বীকার করার এবং রাষ্ট্রীয় সহায়তা কমাতে সম্মত হওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়। কিন্তু পুরো প্রচেষ্টাই ব্যর্থ হয়। উল্লেখ্য, ১৫ বছর ধরে ভর্তুকি নিয়ে বিরোধে জড়িত পক্ষ দুটি।

বিশ্ববাণিজ্য সংস্থার কাছ থেকে আনুষ্ঠানিক সমর্থন পাওয়ার মাত্র কয়েক দিনের মধ্যেই শুল্কারোপ বাস্তবায়ন করল যুক্তরাষ্ট্র।

ট্রাম্প বুধবারই ইউরোপীয়রা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্য অন্যায্য আচরণ করছে বলে ইঙ্গিত করেন। একই সঙ্গে সমঝোতার জন্য তার দরজা এখনও খোলা রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন।

এদিকে নভেম্বরের মাঝামাঝি থেকে ট্রাম্প ইউরোপীয় গাড়ি আমদানিতে উচ্চ শুল্কারোপ করতে পারেন বলে সবচেয়ে বেশি ভয় পাচ্ছে ইইউ। এ ধরনের কোনো পদক্ষেপ বিশেষ করে জার্মানির গাড়ি খাতের জন্য মারাত্মক আঘাত হয়ে দাঁড়াবে।

সর্বশেষ..