সারা বাংলা

বান্দরবানে শান্তিচুক্তির বর্ষপূর্তি উদ্যাপন

প্রতিনিধি, বান্দরবান : সরকারি উদ্যোগে বান্দরবানে পার্বত্য শান্তিচুক্তির ২২ বর্ষপূর্তি উদ্যাপন করা হয়েছে। গতকাল সোমবার সকালে পার্বত্য জেলা পরিষদের উদ্যোগে বান্দরবানে বেলুন ও কবুতর উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন সেনাবাহিনীর ৬৯ রিজিয়নের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল খন্দকার শাহিদুল এমরান। তবে চুক্তি সম্পাদনকারী পাহাড়ের আঞ্চলিক সংগঠন জনসংহতি সমিতি চুক্তির বর্ষপূর্তিতে কোনো কর্মসূচি পালন করেনি।

বর্ষপূর্তি উপলক্ষে জেলা প্রশাসন চত্বর থেকে একটি  শোভাযাত্রা বের হয়। এতে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারী, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রী ও পাহাড়ি-বাঙালি বিভিন্ন সম্প্রদায়ের নারী-পুরুষ অংশ নেয়। শোভাযাত্রাটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে রাজার মাঠে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে সেনাবাহিনীর উদ্যোগে সহস্রাধিক পাহাড়ি-বাঙালি অসহায়, গরিব ও দুস্থদের মধ্যে শীতবস্ত্র এবং শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্কুল ব্যাগ বিতরণ করা হয়। এছাড়া অর্থনৈতিক সংকটে চিকিৎসাসেবা বঞ্চিত মানুষকে বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা ও ওষুধ দেন সেনাবাহিনীর চিকিৎসকরা।

পরে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সেনাবাহিনীর ৬৯ রিজিয়নের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল খন্দকার শাহিদুল এমরান। এ সময় বক্তৃতা করেন বান্দরবানের ডিসি দাউদুল ইসলাম, বান্দরবান পৌরসভার মেয়র ইসলাম বেবী, পুলিশ সুপার জাকির হোসেন মজুমদার প্রমুখ।

এদিকে পার্বত্য শান্তিচুক্তির বর্ষপূর্তিতে কোনো কর্মসূচি পালন করেনি চুক্তি সম্পাদনকারী রাজনৈতিক সংগঠন জনসংহতি সমিতি (জেএসএস)। চুক্তির কোনো কর্মসূচিতেও অংশ  নেয়নি জেএসএস। বিষয়টি নিশ্চিত করে জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক কেএসমং মারমা বলেন, চুক্তির ২২ বছরেও পার্বত্য শান্তিচুক্তি শতভাগ বাস্তবায়িত হয়নি। চুক্তি বাস্তবায়নের আন্দোলন প্রতিহত করতে ক্ষমতাসীন সরকারের মদতে পাহাড়ে অনেকগুলো সংগঠন তৈরি করে জেএসএস নেতাকর্মীদের হত্যা করা হচ্ছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..