প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

বার্জার পেইন্টস ও মেরিকোর আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ ও মেরিকো বাংলাদেশ লিমিটেড প্রথম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বার্জার পেইন্টস: চলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৮ টাকা ৪০ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ২২ টাকা ৫২ পয়সা। অর্থাৎ ইপিএস কমেছে চার টাকা ১২ পয়সা। ৩০ জুন ২০১৭ পর্যন্ত শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) হয়েছে ২৬৭ টাকা ৯১ পয়সা, যা ৩১ মার্চ ২০১৭  পর্যন্ত ছিল ২৪৯ টাকা ৫১ পয়সা।

৩১ মার্চ ২০১৭ সমাপ্ত ১৫ মাসের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে মোট ৬০০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। ওই সময় ইপিএস হয়েছে ১০৯ টাকা এবং এনএভি ২৪৯ টাকা ৫১ পয়সা। কর-পরবর্তী আয় করেছে ২৫২ কোটি ৭৫ লাখ টাকা।

‘এ’ ক্যাটাগরির কোম্পানিটি ২০০৬ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। কোম্পানির ৪০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ২৩ কোটি ১৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ৫৪৭ কোটি ১৫ লাখ টাকা।

২০১৫ সালের সমাপ্ত হিসাববছরে বিনিয়োগকারীদের জন্য ৩৭০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছিল, যা আগের বছরের চেয়ে ১৫০ শতাংশ বেশি। এ সময় ইপিএস হয়েছিল ৬৪ টাকা ৩৭ পয়সা এবং এনএভি ১৮৬ টাকা ৪২ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল যথাক্রমে ৪৯ টাকা ৬৪ পয়সা ও ১৫৪ টাকা চার পয়সা।  কর-পরবর্তী মুনাফা ছিল ১৪৯ কোটি ২৭ লাখ ৭০ হাজার টাকা, যা আগের বছর ছিল ১১৫ কোটি ১০ লাখ ৩০ হাজার টাকা।

মেরিকো বাংলাদেশ: চলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকে ইপিএস হয়েছে ১৫ টাকা ৭১ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ১৪ টাকা ১৭ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরে ইপিএস বেড়েছে এক টাকা ৫৪ পয়সা। ৩০ জুন ২০১৭ পর্যন্ত এনএভি হয়েছে ৬৫ টাকা ৮৮ পয়সা, যা ৩১ মার্চ ২০১৭ পর্যন্ত ছিল ৫০ টাকা ১৬ পয়সা।

৩০ মার্চ ২০১৬ সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে কোম্পানিটি ৪৫০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। এ সময় ইপিএস হয়েছে ৪৪ টাকা ৮৯ পয়সা এবং এনএভি দাঁড়িয়েছে ৫৪ টাকা ২৫ পয়সা। কর-পরবর্তী আয় হয়েছে ১৪১ কোটি ৪০ লাখ ৫০ হাজার টাকা।