প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

বার্জার পেইন্টস ও মেরিকোর পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: পরিচালনা পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা করেছে দুই কোম্পানি।  কোম্পানিগুলো হলো বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেড ও  মেরিকো বাংলাদেশ লিমিটেড। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বার্জার পেইন্টস: আগামী ১৬ জুলাই বেলা ৩টায় পরিচালনা পর্ষদ সভা অনুষ্ঠিত হবে। সভায় ৩০ জুন ২০১৭ পর্যন্ত প্রথম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করা হবে।

৩১ মার্চ ২০১৭ পর্যন্ত সমাপ্ত ১৫ মাসের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে ৪২৫ শতাংশ চূড়ান্ত লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এর আগে কোম্পানিটি ১৭৫ শতাংশ অন্তর্বর্তীকালীন নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। ফলে সদ্যসমাপ্ত হিসাববছরে মোট ৬০০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করলো। ওই সময় শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১০৯ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) ২৪৯ টাকা ৫১ পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ১৬ জুলাই সকাল ১০টায় ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি, বসুন্ধরা, জোয়ারসাহারা, ঢাকায় বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে।

‘এ’ ক্যাটাগরির কোম্পানিটি ২০০৬ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। গতকাল কোম্পানির শেয়ারদর শূন্য দশমিক শূন্য এক শতাংশ বা ২০ পয়সা কমে সর্বশেষ দুই হাজার ১০০ টাকা ১০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল দুই হাজার ১০৮ টাকা ৫০ পয়সা। দিনভর শেয়ারদর দুই হাজার ১০০ টাকা থেকে দুই হাজার ১২৯ টাকা ৯০ পয়সার মধ্যে হাতবদল হয়। এদিন ১৭০টি শেয়ার মোট ২১ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর তিন লাখ ৫৮ হাজার টাকা। গত এক বছরে শেয়ারদর দুই হাজার ৫০ টাকা থেকে দুই হাজার ৫০০ টাকায় হাতবদল হয়।

কোম্পানির ৪০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ২৩ কোটি ১৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ৩৯৭ কোটি ৫৯ লাখ টাকা।

মেরিকো বাংলাদেশ: আগামী ১৭ জুলাই বেলা ২টা ৪৫ মিনিটে পরিচালনা পর্ষদ সভা অনুষ্ঠিত হবে। ওইদিন ৩০ জুন ২০১৭ পর্যন্ত প্রথম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করা হবে।

৩০ মার্চ ২০১৬ সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে কোম্পানিটি ৪৫০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। এ সময় ইপিএস হয়েছে ৪৪ টাকা ৮৯ পয়সা এবং এনএভি দাঁড়িয়েছে ৫৪ টাকা ২৫ পয়সা। কর-পরবর্তী আয় হয়েছে ১৪১ কোটি ৪০ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

গতকাল কোম্পানির ২৪ লাখ ৯৯ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দিনজুড়ে দুই হাজার ৪৩৫টি শেয়ার মোট ৩৬ বার হাতবদল হয়। শেয়ারদর আগের কার্যদিবসের চেয়ে শূন্য দশমিক ৮৯ শতাংশ বা ৯ টাকা ২০ পয়সা কমে প্রতিটি সর্বশেষ এক হাজার ২২ টাকায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল এক হাজার ২৫ টাকা ৭০ পয়সা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনি¤œ এক হাজার ২০ টাকা ২০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ এক হাজার ৩২ টাকায় হাতবদল হয়।