পুঁজিবাজার

বিএসআরএম স্টিলস ও রানার অটোমোবাইলসের লভ্যাংশ ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক:২০১৯ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে প্রকৌশল খাতের কোম্পানি বিএসআরএম স্টিলস লিমিটেড ও রানার অটোমোবাইলস লিমিটেড। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
বিএসআরএম স্টিলস লিমিটেড: কোম্পানিটি ২৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। আলোচিত সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে চার টাকা ৬০ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৫৫ টাকা ৫৮ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ হয়েছে ১২ টাকা ৪৩ পয়সা লোকসান। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ১৯ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৯টায় চট্রগ্রামের শরনিকা কমিউনিটি সেন্টারে (১৩ লাভ লেন) বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এ জন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২৭ অক্টোবর।
এদিকে গতকাল ডিএসইতে কোম্পানিটির শেয়ারদর দুই দশমিক ১৬ শতাংশ বা এক টাকা ১০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ৫২ টাকা ১০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ৫১ টাকা ৯০ পয়সা। দিনজুড়ে ৫৯ হাজার ১৮৫টি শেয়ার ১৮১ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ৩১ লাখ ছয় হাজার টাকা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনিম্ন ৫১ টাকা ৬০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ৫৫ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ৫০ টাকা থেকে ৭২ টাকা ৪০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে।
এর আগে ২০১৮ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরে কোম্পানিটি ১০ শতাংশ নগদ ও ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। আলোচিত সময়ে ইপিএস হয়েছে পাঁচ টাকা ২৭ পয়সা এবং এনএভি দাঁড়িয়েছে ৩৭ টাকা ৪৮ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে ১৮০ কোটি আট লাখ টাকা। এর আগের বছর কোম্পানিটি ৩৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছিল। ওই সময় ইপিএস হয়েছিল আট টাকা ৬৬ পয়সা ও এনএভি দাঁড়ায় ৩৩ টাকা ৭২ পয়সা। ২০১৭ সালে মুনাফা হয়েছে ২৯৬ কোটি দুই লাখ ২০ হাজার টাকা। প্রকৌশল খাতের এ কোম্পানিটি ২০০৯ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। ৫০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৩৭৫ কোটি ৯৫ লাখ ৩০ হাজার টাকা। কোম্পানির রিজার্ভের পরিমাণ ৯০৫ কোটি ২৭ লাখ ৭০ হাজার টাকা। কোম্পানিটির মোট ৩৭ কোটি ৫৯ লাখ ৫২ হাজার ৫০০টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, কোম্পানির মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে ৭০ দশমিক ৫৩ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক ১৮ দশমিক ২৪ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়োগকারীদের শূন্য দশমিক ২৯ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে বাকি ১০ দশমিক ৯৪ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।
সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদন ও বাজারদরের ভিত্তিতে শেয়ারের মূল্য আয় (পিই) অনুপাত ৯ দশমিক ৮৫ এবং হালনাগাদ অনিরীক্ষিত ইপিএসের ভিত্তিতে ১২ দশমিক ৫২।
রানার অটোমোবাইলস লিমিটেড: কোম্পানিটি ১০ শতাংশ নগদ ও পাঁচ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। আলোচিত সময়ে ইপিএস হয়েছে পাঁচ টাকা সাত পয়সা এবং এনএভি দাঁড়িয়েছে ৬৫ টাকা ৪৯ পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ২৫ নভেম্বর সকাল ১১টায় রাজধানীর ট্রাস্ট মিলনায়তনে বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫ অক্টোবর।
এদিকে গতকাল ডিএসইতে কোম্পানিটির শেয়ারদর দুই দশমিক ৮১ শতাংশ বা দুই টাকা ২০ পয়সা কমে প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ৭৬ টাকা ২০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ৭৬ টাকা ৪০ পয়সা। দিনজুড়ে চার লাখ ১৮ হাজার ৪৯টি শেয়ার এক হাজার ৮৮ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর তিন কোটি ২২ লাখ ৫১ হাজার টাকা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনি¤œ ৭৪ টাকা ১০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ৭৯ টাকা ৫০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ৭৪ টাকা ১০ পয়সা থেকে ১১৪ টাকা ৫০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে।
প্রকৌশল খাতের এ কোম্পানিটি ২০১৯ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এন’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। ২০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ১০৮ কোটি ১৩ লাখ ৩০ হাজার টাকা। কোম্পানির রিজার্ভের পরিমাণ ৫৬১ কোটি ৪৯ লাখ ৬০ হাজার টাকা। কোম্পানিটির মোট ১০ কোটি ৮১ লাখ ৩৩ হাজার ২৬৯টি শেয়ার রয়েছে।

সর্বশেষ..