সারা বাংলা

বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত

প্রতিনিধি, চুয়াডাঙ্গা: চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার ঠাকুরপুর সীমান্তে ভারতের অভ্যন্তরে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশের দায়ে বিএসএফের ছোড়া গুলিতে এক বাংলাদেশি যুবক নিহত হয়েছেন। নিহত যুবক ওমিদুল (১৯) উপজেলার ঠাকুরপুর গ্রামের শফিকুল ইসলাম শহীদের ছেলে।

চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবি ব্যাটালিয়নের পরিচালক মোহাম্মদ খালেকুজ্জামান পিএসসি জানান, গতকাল ভোরের দিকে বিজিবির একটি টহলদলের সদস্যরা চুুয়াডাঙ্গার ঠাকুরপুর সীমান্তের ৮৯ নম্বর মেইন খুঁটির কাছে গুলির শব্দ শুনতে পেয়ে তাদের টহল আরও জোরদার করেন। এরপর এদিন সকালে ওই সীমান্ত খুঁটির কাছে বিজিবি সদস্যরা ভারতের মালুয়াপাড়া বিএসএফ ক্যাম্প কমান্ডেন্টের গাড়িসহ একটি অ্যাম্বুলেন্স দেখতে পান।

এর কিছুক্ষণ পর বিএসএফ সদস্যরা ভারতের অভ্যন্তর থেকে মোবাইল ফোনে গুলিতে নিহত যুবকের ছবি তুলে সেটা বিজিবির কাছে পাঠান। বিজিবি ওই ছবি ঠাকুরপুর গ্রামবাসীদের দেখালে নিহত ওমিদুলের বাবা সেটা তার ছেলে বলে নিশ্চিত করেন।

ছবিটি বিজিবির কাছে পাঠিয়ে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ সদস্যরা জানান, নিহত ব্যক্তি অবৈধভাবে ভারতের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে বিএসএফ সদস্যদের চ্যালেঞ্জ করে। ওই সময় বিএসএফ গুলি ছুঁড়লে তিনি নিহত হন। এ ঘটনায় বিজিবির পক্ষ থেকে বিএসএফ মালুয়াপাড়া বরাবর প্রতিবাদপত্র ও পতাকা বৈঠকের জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে। পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ওমিদুলের লাশ ফেরত পাওয়া যাবে বলে তিনি জানান।

তিনি আরও বলেন, নিহত ওমিদুলের বাবা বলেছেন, তার ছেলে রাজমিস্ত্রির সহযোগী হয়ে কাজ করে জীবিকানির্বাহ করতেন। কাদের প্ররোচনায় পড়ে তিনি অবৈধভাবে ভারতের অভ্যন্তরে প্রবেশ করেছিলেন, তা তার জানা নেই।

গতকাল বিকালে এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত পতাকা বৈঠকের বিষয়ে বিএসএফের পক্ষ থেকে কোনো সাড়া পায়নি বিজিবি। তবে দ্রুত পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে বিএসএফ ওমিদুলের লাশ ফেরত দেবে বলে তিনি জানান।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..