প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি করে পলায়ন, শ্রীলঙ্কায় এমপি নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: শ্রীলঙ্কায় সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষের পর শাসকদলীয় এক সংসদ সদস্য (এমপি) মারা গেছেন। আগুন দেওয়া হয়েছে এক মেয়রের বাড়িতে। সোমবার (৯ মে) দেশব্যাপী ব্যাপক বিক্ষোভ-সহিংসতার মধ্যে এসব ঘটনা ঘটেছে।

নিহত অমরাকীর্থি আথুকোরালা ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল শ্রীলঙ্কা পদুজেনা পেরামুনার (এসএলপিপি) এমপি ছিলেন।

বার্তা সংস্থা এএফপির বরাতে দ্য ইকোনমিক টাইমস জানিয়েছে, সোমবার শ্রীলঙ্কার নিতাম্বুওয়া শহরে সরকার দলীয় এমপি অমরকীর্থী আঠুকোরলার গাড়ির সামনে পথ আটকে বিক্ষোভ করছিল কিছু লোক। এসময় তাদের দিকে গুলি ছোড়েন অমরকীর্থী, এতে অন্তত দুজন গুরুতর আহত হন।

এরপর পার্শ্ববর্তী একটি ভবনে আশ্রয় নেওয়ার চেষ্টা করেন শ্রীলঙ্কার ওই এমপি। পরে সেখানে তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়।

এদিকে, ডেইলি মিরর জানিয়েছে, দেশটির উইলোরাওয়াট এলাকায় মোরাতুয়ার মেয়র সামান লাল ফার্নান্দোর সরকারি বাসভবনে আগুন দিয়েছে একদল সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারী। তবে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

লঙ্কান সংবাদমাধ্যমটি আরও জানিয়েছে, নিতাম্বুওয়ায় গুলির ঘটনায় তিনজন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

বেশ কিছুদিন ধরেই অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সংকটে উত্তাল শ্রীলঙ্কা; এরই মধ্যে সোমবার পদত্যাগ করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে।

১৯৪৮ সালে স্বাধীনতার পর সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক সংকটের মুখে পড়েছে শ্রীলঙ্কা। এই সংকটের জন্য সরকারের অব্যবস্থাপনাকে দায়ী করছে দেশটির জনগণ। বেশ কিছুদিন ধরে প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষের কার্যালয়ের বাইরে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করছে বিরোধীরা।

সোমবার রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে সরকার সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়েছে। এতে অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন। সংকট সমাধানে এদিনই পদত্যাগ করেছেন শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে।

সহিংসতা বন্ধে দেশজুড়ে কারফিউ জারি করেছে শ্রীলঙ্কা পুলিশ।

এর আগে গত শুক্রবার দেশটির প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে জানিয়েছিলেন যে, তার ভাই অর্থাৎ দেশটির প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়াতে সম্মতি জানিয়েছেন।

অর্থনৈতিক সংকটসহ নানা সংকটে জর্জরিত দেশটিতে অনেকদিন ধরেই বিক্ষোভ চলছে। এই পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে প্রধানমন্ত্রীকে পদত্যাগের অনুরোধ করেছিলেন প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে।

এদিকে প্রেসিডেন্ট নিজেও পদত্যাগের চাপে রয়েছেন। শুরু থেকেই প্রেসিডেন্টকে তার পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ করছে সাধারণ মানুষ।