ফিচার

বিজনেস আইডিয়া: কোকোপিটের ব্যবসা

নিজের পায়ে দাঁড়াতে হলে আপনাকে উদ্যোগী হতে হবে। আর উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য ঠিক করতে হবে, কী দিয়ে শুরু করবেন। এজন্য দরকার অল্প পুঁজিতে শুরু করা যায় এমন ব্যবসা। এ ধরনের উদ্যোক্তার পাশে দাঁড়াতে শেয়ার বিজের সাপ্তাহিক আয়োজন

দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ছাদবাগান। ছাদের পাশাপাশি আজকাল অনেকে ঘর ও বেলকনিতেও গাছ রাখতে পছন্দ করেন। ঘরের শোভা বাড়ানো ও পরিবেশের যতেœ বৃক্ষপ্রেমীরা ফুল গাছ কিংবা সবজির বাগান করে থাকেন। কিন্তু শহরে মাটির অভাব বেশ প্রকট। ফলে ছাদ কিংবা গৃহে বাগান করার ইচ্ছে অনেক সময় পূরণ হয় না। এ সমস্যা সমাধানে কোকোপিট বিশেষ ভূমিকা রাখে। মাটির বিকল্প হিসেবে এটি সহজে ব্যবহার করা যায়। তাই চাহিদা বিবেচনায় কোকোপিটের ব্যবসা শুরু করতে পারেন। অর্থাৎ, সুযোগটি কাজে লাগাতে পারেন।

কোকোপিটের ব্যবসা বেশ লাভজনক। কারণ, শহরে এর চাহিদা রয়েছে। তাছাড়া এ ব্যবসায় তুলনামূলক কম পুঁজি লাগে। সাফল্যের হার বেশি।

কেন শুরু করবেন

কোকোপিট একটি জৈব উপাদান। নারিকেলের ছোবড়ার এক ধরনের গুঁড়োর উপাদান এ কোকোপিট। শুধু শৌখিন বাগানের জন্যই নয়, বাণিজ্যিক ছাদবাগান কিংবা আধুনিক কৃষি খামারেও কোকোপিট এক অভাবনীয় নতুন দিগন্ত উম্মোচন করতে পারে। বলা যায়, মাটির উন্নত বিকল্প হিসেবে কাজ করে এটি।

যেভাবে শুরু করবেন

যে কোনো ব্যবসার শুরুতে প্রয়োজন সঠিক পরিকল্পনা। এ ব্যবসার ক্ষেত্রেও কথাটি প্রযোজ্য। প্রথমে জানতে হবে কোকোপিট কীভাবে তৈরি করা হয়, নারিকেলের ছোবড়া কোথা থেকে কিনতে হবে, কোন স্থানে এর চাহিদা বেশি, প্রতিষ্ঠান কোথায় চালু করবেনÑপ্রশ্নগুলোর উত্তর খোঁজার জন্য বিষয়গুলোর একটি তালিকা করতে পারেন। তাহলে কোকোপিট ব্যবসার খুঁটিনাটি জানা সহজ হবে। ব্যবসা শুরুও সহজতর হবে। হাতে সামান্য পুঁজিও থাকতে হবে। বাড়িতেই এ ব্যবসা শুরু করতে পারেন। পবরর্তী সময়ে লাভের টাকা দিয়ে বাজারে এর প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে পারেন।

উপকরণ

#   নারিকেলের ছোবড়া

#   কাঁচি

#   ইলেকট্রিক মেশিন

#   কয়েক ধরনের সার

#   মাটি

প্রস্তুত প্রণালি

কোকোপিট দুইভাবে তৈরি করা যায়। হাত দিয়ে ও মেশিনের সাহায্যে। নারিকেলের ছোবড়া হাত দিয়ে ছোট টুকরো করতে হবে। এ সময় যে তুষগুলো পড়বে, সেগুলোর সঙ্গে কিছু মাটি ও পানি মিশিয়ে ব্লক তৈরি করা যায়। অন্যদিকে ছোবড়াগুলো দিয়ে মেশিনের সাহায্যে কোকোপিটের ব্লক তৈরি করা হয়। তবে ব্লক তৈরির আগে তুষগুলোয় সার মিশিয়ে নেওয়া ভালো।

সুবিধা

ছাদবাগানের জন্য কোকোপিট বেশ সুবিধাজনক। এর ওজন তুলনামূলক কম। এটি জলীয় অংশ ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন একটি জৈব উপাদান। হালকা ও ঝুরঝুরে হওয়ায় এর ভেতরে সহজে উদ্ভিদের জন্য খাদ্য তৈরিতে অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারে। এছাড়া কোকোপিটে ফলন ভালো হয়। টব বা পাত্রে সহজে বহন করা যায়।

বাজারজাতকরণ

ব্যবসার সফলতা ও প্রসারের অন্যতম শর্ত হলো বাজারজাতকরণ। পণ্য যতই উন্নত হোক না কেন, যদি বাজারজাতকরণের কৌশল ভালো না হয়, তবে ব্যবসায় লাভের থেকে ক্ষতি হবে বেশি। বাজারজাতকরণের জন্য অবশ্যই বিজনেস কার্ড কিংবা ভিজিটিং কার্ড করতে হবে। পাশাপাশি ব্রসিয়ারও করতে পারেন। এতে আপনার পণ্য সম্পর্কে ক্রেতারা জানতে পারবেন। প্রথমে স্থানীয়দের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করুন। এরপর ধীরে ধীরে এলাকার বাইরে পণ্য বিক্রি শুরু করতে পারেন। প্রথম দিকে পণ্যের দাম কম রাখুন। পরে ক্রেতারা আপনার পণ্যের প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠলে স্বাভাবিক দামে বিক্রি করুন। প্রতি কোকোপিটের দাম ২০০ থেকে ৩০০ টাকা।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..