এসএমই

বিজনেস আইডিয়া: বাদাম প্রক্রিয়াজাতকরণ

নিজের পায়ে দাঁড়াতে হলে আপনাকে উদ্যোগী হতে হবে। আর উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য ঠিক করতে হবে, কী দিয়ে শুরু করবেন। এজন্য দরকার অল্প পুঁজিতে শুরু করা যায়Ñএমন ব্যবসা। এ ধরনের উদ্যোক্তার পাশে দাঁড়াতে শেয়ার বিজের সাপ্তাহিক আয়োজন

আত্মনির্ভরশীল হতে কে না চায়! সঠিক পথে অর্থ উপার্জন করে স্বাবলম্বী হতে চান অনেকে। এ জন্য অনেকে সরকারি কিংবা বেসরকারি চাকরি করার ইচ্ছে পোষণ করেন। এ পথে সফলকাম না হলে অর্থাৎ ব্যর্থতায় পর্যবসিত হলে ব্যবসার চিন্তা করেন অনেকে। আবার এক্ষেত্রেও অনেক সমস্যা রয়েছে। যেমন পুঁজির অভাব। সঠিক তথ্যের অভাব।

আসলে ব্যবসা শুরুর জন্য বিনিয়োগের প্রয়োজন রয়েছে। তবে তা ব্যবসার ধরনের ওপর নির্ভর করে। অনেক ব্যবসা রয়েছে যেখানে অল্প পুঁজি দিয়েই সফল হওয়া সম্ভব। এমন উদ্যোক্তার জন্য অল্প পুঁজির লাভজনক ব্যবসা হচ্ছে বাদাম বিক্রির ব্যবসা। স্বাস্থ্যকর খাবার হিসেবে এ ব্যবসা একটি ভালো উদ্যোগ হতে পারে। তাছাড়া বাড়িতেই করা যায় বলে এ ব্যবসা তুলনামূলক সহজও।

বাজার সম্ভাবনা

বাদামের চাহিদা বছরজুড়ে থাকে।ছোট-বড় সবার কাছে প্রিয়। বিনোদন স্থানগুলোয় এর চাহিদা তুলনামূলক বেশি। এছাড়া বাদাম দিয়ে তৈরি নানা মুখরোচক খাবার ক্ষুধা নিবৃত্তি করে।

শুরু করবেন যেভাবে

ব্যবসায় সফল হতে হলে পরিকল্পনা প্রয়োজন। তাই এ ব্যবসা শুরু করার আগে জেনে নিতে হবে বাজার সম্পর্কে। কতটা বিনিয়োগ করতে হবে, কতদিন এর মান ভালো থাকবে, এর পরিশ্রম কেমন হবে প্রভৃতি বিষয় জানতে হবে। এরপর হাতে পুঁজি রাখতে হবে।

বাদামের ব্যবসা দুইভাবে করা যায়। নিজে বাদাম ভেজে বিক্রি করে। অথবা পাইকারি দরে কিনে মজুদ করে রেখে বিক্রি করা যেতে পারে। চাইলে এক সঙ্গে দুটোই চালিয়ে নিতে পারবেন। ভাজা বাদাম বিক্রি করেও লাভবান হওয়া যায়।

প্রয়োজন

#    বাদাম ভাজার জন্য বড় কড়াই

#    বড় গামলা

#    ছিদ্রযুক্ত চালনি

#    বড় হাতা বা নাখড়ি প্রভৃতি

সতর্কতা

ভাজা বাদামের ক্ষেত্রে একটু সতর্ক থাকতে হবে। ভাজার সময় বেশি পুড়ে গেলে বাদামের স্বাদ তেতো হয়ে যাবে। এতে ব্যবসায় ক্ষতির মুখে পড়বেন। তাই বালি কড়াইয়ে দিয়ে হালকা আঁচে ভেজে নিতে হবে। অপরদিকে পাইকারি কাঁচা বাদামের ক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে যে স্থানে বাদাম রাখা হবে সে স্থানটি যাতে স্যাঁতসেঁতে না হয়। তা না হলে বাদামে ছত্রাক ধরবে। এতে বাদামের পুষ্টিগুণ নষ্ট হবে। তাই কিছুদিন পর পর গুদাম করে রাখা বাদাম রোদে দিয়ে শুকিয়ে নিতে হবে।

খরচ ও লাভ

২০ থেকে ৩০ হাজার টাকা দিয়ে শুরু করা যেতে পারে বাদামের ব্যবসা। পরবর্তী সময়ে মূলধন বাড়িয়ে ব্যবসার পরিসর বাড়ানো যেতে পারে। এ ব্যবসায় মাসে ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা লাভ করা যায়।

প্রশিক্ষণ

বাদাম ব্যবসায় তেমন কোনো প্রশিক্ষণের প্রয়োজন পড়ে না। তবে অভিজ্ঞ কোনো ব্যবসায়ীর পরামর্শ নেওয়া উচিত।

সর্বশেষ..