বিজনেস আইডিয়া:পনির তৈরি

নিজের পায়ে দাঁড়াতে হলে আপনাকে উদ্যোগী হতে হবে। আর উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য ঠিক করতে হবে কী দিয়ে শুরু করবেন। এজন্য দরকার অল্প পুঁজিতে শুরু করা যায় এমন ব্যবসা। এ ধরনের উদ্যোক্তার পাশে দাঁড়াতে শেয়ার বিজের সাপ্তাহিক আয়োজন

পনির খুবই সুস্বাদু খাবার। এর চাহিদা আগেও ছিল, এখনও আছে। স্বাদে ও পুষ্টিতে এর জুড়ি মেলা ভার। পনির তৈরিতে খুব বেশি পরিশ্রম ও পুঁজির দরকার হয় না। তাই স্বল্পপুঁজিতে পনিরের ব্যবসা একটি ভালো উদ্যোগ হতে পারে।

 

সম্ভাব্য পুঁজি

প্রাথমিক অবস্থায় ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা দিয়ে এ ব্যবসা শুরু করতে পারেন। ব্যবসার শুরুতে কিছু সরঞ্জাম ও উপকরণ প্রয়োজন। এজন্য চার থেকে পাঁচ হাজার টাকা হলেই চলবে।

 

প্রস্তুত প্রণালি

পনির তৈরির জন্য প্রয়োজন দুধ, লেবুর রস ও লবণ। প্রথমে কাঁচা দুধ বড় পাত্রে ঢেলে পরিমাণ অনুযায়ী রেজিন ও ছাঁচ দিন। এরপর লেবুর রস ছেঁকে দুধের মধ্যে ঢালুন। রেজিন ও ছাঁচ দেওয়ার পর তা চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা ঢেকে রাখুন। পরে দুধের ছানা আলাদা করে পাতলা কাপড় দিয়ে ছেঁকে ফেলুন। ছেঁকে নেওয়া ছানা বিশেষভাবে তৈরি করা বাঁশের টুকরিতে রেখে অন্য একটি দিয়ে সাত-আট ঘণ্টা ঢেকে রাখুন। এরপর বাঁশের টুকরি খুলে পনিরের গায়ে ছিদ্র করে প্রয়োজনমতো লবণ দিন। লবণ মাখানোর পর পনির শক্ত হওয়ার জন্য আরও ৪৮ ঘণ্টা রেখে দিতে হয়। এরপর সুবিধামতো আকারে বিক্রি করুন।

 

বাজারজাতকরণ

বিভিন্ন মিষ্টির দোকানে পনিরের চাহিদা রয়েছে। মেগাশপেও সরবরাহ করতে পারেন।

 

পরামর্শ

প্রশিক্ষণ নিয়ে ব্যবসা চালাতে পারলে ভালো ফল পাওয়া সম্ভব। এজন্য পনির তৈরি করতে জানেনÑএমন কারও সঙ্গে আলোচনা করুন। এছাড়া অনেক সংগঠন প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে। যেমন ব্র্যাক, প্রযুস, বিসিক প্রভৃতি।

 

সম্ভাব্য লাভ

পনির তৈরির মূল উপাদান দুধ। ঢাকার বাইরে প্রতি লিটার দুধের দাম ৫০ টাকার মতো। এ হিসাবে ২০০ লিটার দুধের দাম পড়বে ১০ হাজার টাকা। ২০০ লিটার দুধ থেকে ৩৫ থেকে ৪০ কেজি পনির তৈরি সম্ভব। প্রতি কেজি পনির বিক্রি করা যাবে ৬৫০ থেকে ৭০০ টাকায়। অর্থাৎ ৪০ কেজি পনির প্রায় ৩০ হাজার টাকায় বিক্রি করা যাবে।

 

রাহাতুল ইসলাম

সর্বশেষ..