প্রচ্ছদ শেষ পাতা

বিদেশি প্রতিষ্ঠানের অর্থ ফেরতে এডিদের যথাযথ আবেদনের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশে অবস্থিত বিদেশি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বা রিপ্রেজেন্টেটিভ অফিস, লিয়াজোঁ অফিস বা শাখা অফিসের প্রধান কার্যালয় থেকে নেওয়া ঋণের অব্যবহৃত অংশ অথবা পুরোটা ফেরত পাঠানোর ক্ষেত্রে অথোরাইজড ডিলারদের (এডি) যথাযথ প্রক্রিয়ায় আবেদন করতে বলা হয়েছে। এতে অনুমোদনের প্রক্রিয়া সহজ হবে বলে মনে করছে বাংলাদেশ ব্যাংক।
গতকাল বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রা অপারেশন বিভাগ থেকে এ-সংক্রান্ত এক সার্কুলার জারি করে বিদেশি মুদ্রায় লেনদেনে নিয়োজিত অথোরাইজড ডিলার (এডি) ব্যাংকগুলোকে পাঠানো হয়েছে।
এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে ব্যবসা পরিচালনা করছে, এমন বিদেশি প্রতিষ্ঠানের শাখা অফিস বা লিয়াজোঁ অফিস বা রিপ্রেজেন্টেটিভ অফিস বন্ধ করার পর তাদের যে অবশিষ্ট স্থিতি থাকবে সেক্ষেত্রে বা তাদের প্রধান কার্যালয় থেকে নেওয়া ঋণ ফেরতের ক্ষেত্রে এডিদের মাধ্যমে আবেদন বাংলাদেশ ব্যাংকে জমা দিতে হয়। কিন্তু দেখা যাচ্ছে, অধিকাংশ ক্ষেত্রে আবেদনগুলো যথাযথভাবে করা হয় না। এতে ওইসব ইস্যু নিষ্পন্ন করতে বাড়তি সময় লেগেই যাচ্ছে। এসব ক্ষেত্রে দেশ থেকে অর্থ নিয়ে যাওয়ার অনুমোদন প্রক্রিয়া সহজ করতে এডিগুলোকে সব ধরনের প্রয়োজনীয় নথিপত্রসহ বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রা অপারেশন বিভাগে আবেদন জমা দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হলো। এ ক্ষেত্রে কী কী নথিপত্র দিতে হবে, তার একটি তালিকাও প্রস্তুত করে সার্কুলারের সঙ্গে জুড়ে দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।
এছাড়া ‘বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেন আইন ১৯৪৭’-এর ১৮-এর খ(১) ধারা অনুযায়ী বাংলাদেশে কার্যক্রম পরিচালনাকারী বিদেশি কোম্পানি বা ফার্মসহ সব ধরনের প্রতিষ্ঠানের মনোনীত এডিদের মাধ্যমে বিদেশে অবস্থিত তাদের প্রধান কার্যালয়ে মুনাফা নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংক পূর্বানুমোদন ছাড়াই সুযোগ দিচ্ছে। এক্ষেত্রে মুনাফা নিয়ে যাওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে সব ধরনের নথিপত্রসহ বাংলাদেশ ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট বিভাগে একটি যাচাইপূর্বক ‘পোস্ট-ফ্যাক্টো’ অনুমোদনের আবেদন করতে বলা হয়েছে।

সর্বশেষ..