প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

বিদ্যালয়ের কাজে ঠিকাদারি না পেয়ে প্রধান শিক্ষককে চপেটাঘাত

প্রতিনিধি, পঞ্চগড় : পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় স্কুলের সংস্কার কাজের ঠিকাদারি কাজ না দেয়ায় গোবিন্দগুরু সরকারি প্রার্থমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বলাই চন্দ্র দাসকে চপেটাঘাত করেছের একই বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য লিয়াকত আলী। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে জেলার বোদা উপজেলার সাকোয়া ইউনিয়নের গোবিন্দগুরু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনাটি ঘটেছে। দোষী ব্যক্তির বিচার দাবি করে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয় চত্বরে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে।

এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, চলতি অর্থবছরে গোবিন্দগুরু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ক্ষুদ্র মেরামত করার জন্য উপজেলা শিক্ষা অফিস থেকে দুই লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়, যা প্রকল্প কমিটির মাধ্যমে বিদ্যালয়ের সংস্কারকাজ সম্পন্ন করা হবে। টাকা বরাদ্দ পাওয়ার পর ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বলাই চন্দ্র দাস মিটিংয়ের মাধ্যমে প্রকল্প কমিটি গঠন করে মেরামত কাজ শুরু করে। এ সময় ওই বিদ্যালয়ের সদ্য গঠিত ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক সদস্য লিয়াকত আলী বিদ্যালয়ের রঙের কাজটি নিজে করবেন বলে দাবি করেন। তিনি নিজেই পেশায় রংমিস্ত্রির কাজ করেন। প্রধান শিক্ষক কাজের মান ভালো করতে অন্য মিস্ত্রিদ্বারা বিদ্যালয়ের রং করাসহ মেরামত কাজ শুরু করেন।

কিন্তু গতকাল বিদ্যালয়ের রঙের ঠিকাদারি কাজ না পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য লিয়াকত আলী মঙ্গলবার দলবল সহকারে বিদ্যালয়ে হামলা চালিয়ে ওই বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বলাই চন্দ্র দাসকে চপেটাঘাত করেন এবং মেরামত কাজ বন্ধ করে দেন।

এদিকে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে লাঞ্ছিত, বিদ্যালয়ে হামলা ও সরকারি কাজে বাধা প্রদানকারীদের বিচারের দাবিতে তাৎক্ষণিক ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয় চত্বরে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।

 বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বলাই চন্দ্র দাস জানান, বিদ্যালয়ের মেরামত কাজের ঠিকাদারি না দেয়ায় ম্যানেজিং কমিটির সদস্য লিয়াকত আলী বিদ্যালয়ে হামলা চালিয়ে তাকে লাঞ্ছিত করেছে। বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে জানিয়েছি, তিনি আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছেন।

বোদা উপজেলা শিক্ষা অফিসার মাসুদ হাসান জানান, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য কর্তৃক শিক্ষককে লাঞ্ছিত করার বিষয়টি মৌখিকভাবে শুনেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে বিধি ও আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে মুঠোফেনে লিয়াকতের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টার করা হলে তার ফোনের সুইচ অফ পাওয়া গেছে।