প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

বিনিয়োগ বৃদ্ধির প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে:খলিলুর রহমান

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম: সরকারের উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় আমরা সহযোগী। দেশ আরও উন্নত হোক, এ প্রত্যাশা আমাদের। স্বল্প আয়ের দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশের দিকে আমাদের যাত্রা শুরু হয়েছে। অবকাঠামোগত সমস্যা ও আমলাতান্ত্রিক জটিলতা থেকে মুক্ত হয়ে বিনিয়োগ ও ব্যবসাবান্ধব বাণিজ্যনীতি গ্রহণ করা হলে বিশ্বের বুকে আমাদের অবস্থান আরও উন্নত হতে বেশি সময় লাগবে না। সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের সঙ্গে ব্যবসায়ীরাও আন্তরিকভাবে সম্পৃক্ত। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি সরকারের উন্নয়ন সহযোগী হিসেবে এ যাবত আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। বিনিয়োগের অগ্রযাত্রা আরও সুগম করার জন্য সরকারের সঙ্গে সহযোগিতা করার প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে। মেলার সমাপনী অনুষ্ঠান প্রধান অতিথির বক্তব্য শিল্পপতি ও সিএমসিসিআই সভাপতি খলিলুর রহমান এসব বলেন।

চট্টগ্রামের হালিশহর আবাহনী মাঠে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি আয়োজিত বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও রফতানি মেলা-২০১৬ এর সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল শনিবার অনুষ্ঠিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও রফতানি মেলা-২০১৬ এর কনভেনার এবং সিএমসিসিআই পরিচালক আমিনুজ্জামান ভূঁইয়া। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিএমসিসিআই সভাপতি খলিলুর রহমান। আরও উপস্থিত ছিলেন কো-কনভেনার এবং সিএমসিসিআই সহ-সভাপতি এএম মাহবুব চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আবদুল আউয়াল, ড. মহসিন জিল্লুর করিম, লিয়াকত আলী চৌধুরী, মো. মহসিন এবং সুলতানা শিরিন আকতার।

কেডিএস গ্রুপের কর্ণধার আরও বলেন, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি সরকারের বাণিজ্য নীতির অধীনে দেশের অর্থনীতি উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা পালন করে আসছে। এ চেম্বার, প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে আজ পর্যন্ত অব্যাহতভাবে দেশের আমদানি-রফতানি বাণিজ্যসহ নীতি প্রণয়নে সহায়ক ভূমিকা পালন করে আসছে। এ চেম্বারের সঙ্গে সম্পৃক্ত অনেক বৃহৎ করদাতা প্রতিষ্ঠান কর্মসংস্থান সৃষ্টি, রফতানি বাণিজ্যে অবদান রেখে জাতীয় প্রবৃদ্ধি অর্জনে বিশেষ ভূমিকা পালন করে আসছে।

বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও রফতানি মেলা-২০১৬ এর কনভেনার এবং সিএমসিসিআই পরিচালক আমিনুজ্জামান ভূঁইয়া বলেন, নানা প্রতিকূলতা সত্ত্বেও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির আয়োজিত বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও রফতানি মেলা ২০১৬ আপনাদের সবার আন্তরিক প্রচেষ্টায় এ মেলা আয়োজন করতে সক্ষম হয়েছি।

আয়োজক সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রাম শহরে ডিসেম্বর মাসে আরও ৪/৫টি অন্যান্য মেলা চালু ছিল বিধায় আমাদের মেলায় অংশগ্রহণকারী ব্যবসায়ীদের অনেকেই যথাসময়ে মেলায় অংশ নিতে পারেননি। এমতাবস্থায় তারা তাদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে এ মেলা আগামী ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত সময়সীমা বাড়ানো পক্ষে ব্যবসায়ীরা জোর দাবি জানায়। ফলে মেলার সময়সীমা বৃদ্ধির জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মেলার সময় আরও ১৫ দিন বাড়তে পারে।

উল্লেখ্য, তৃতীয়বারের মতো আয়োজিত বিআইটিইএফ মেলার এক লাখ ৭০ হাজার বর্গফুট জায়গায়  মাসব্যাপী এ রফতানি ও বাণিজ্য মেলায় ব্র্যাক বিকাশ, আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ, টিকে গ্রুপ, বিএসআরএম, কেডিএস গ্রুপ, সিলন চা, কিষোয়ান গ্রুপ, আরকে হোম টেক্সটাইল, ভারত প্যাভিলিয়ান, থাইল্যান্ড প্যাভিলিয়ান, আরএফএল প্লাস্টিক, কাপড় বিক্রয় প্রতিষ্ঠান, ব্যাগ ও কসমেটিক বিক্রয় প্রতিষ্ঠান, রান্না-বান্নার প্রয়োজনীয় ক্রোকারিজ সরঞ্জাম বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান, বাচ্চাদের খেলনা, ঘর সাজানোর শো-পিস বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানসহ মোট  দুশটি উৎপাদন ও বিপণন প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করে এসব প্রতিষ্ঠান ক্রেতা সাধারণের জন্য আকর্ষণীয় মূল্যে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনার সুযোগ ছিল।