দিনের খবর প্রচ্ছদ প্রথম পাতা

বিবিধ ও প্রকৌশল খাতের সন্তোষজনক লেনদেন

মুস্তাফিজুর রহমান নাহিদ: পুঁজিবাজারে চলছে খাত বদলের বিনিয়োগ। ঘন ঘন এক খাত ছেড়ে অন্য খাতের শেয়ারে ঝুঁকে পড়ছেন বিনিয়োগকারীরা। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল এ তালিকায় যোগ হয় বিবিধ ও প্রকৌশল খাত। এর মধ্যে দিয়ে দীর্ঘদিন পর এ দুই খাতের শেয়ারের সন্তোষজনক লেনদেন দেখা গেল। পাশাপাশি গতকালও লেনদেনে বেশ ভালো অবস্থানে ছিল ব্যাংক খাত।

গতকালের বাজার বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, বিনিয়োগকারীদের আগ্রহের তালিকায় শীর্ষে বিবিধ এবং প্রকৌশল খাত। চাহিদা থাকার কারণে বাড়তে থাকে এ খাতের বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারদর, যার জের ধরে বহুদিন পর মোট লেননেদে এ খাত দুটি এককভাবে ১০ শতাংশের বেশি অবদান রাখতে সক্ষম হয়। গতকাল দিন শেষে মোট লেনদেনে বিবিধ খাতের একক অবদান দেখতে পাওয়া যায় ১১ দশমিক ১৯ শতাংশ। একইভাবে প্রকৌশল খাতের একক অংশগ্রহণ দেখা যায় ১০ শতাংশ।

এদিকে গতকাল কিছু ব্যাংকের শেয়ারদর কমলেও লেনদেনে বেশ ভালো অবস্থানে ছিল ব্যাংক খাত। দিন শেষে মোট লেনদেনে এ খাতের অবদান দেখতে পাওয়া যায় ১৩ শতাংশের বেশি। অন্যদিকে গতকালও বিমা খাতের বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারদর কমতে দেখা গেছে। তবে বিক্রয় চাপ বেশি থাকায় বরাবরের মতো গতকালও লেনদেনে বেশ এগিয়ে যায় খাতটি। দিন শেষে মোট লেনদেনে এ খাতের অংশগ্রহণ দেখা যায় ৩০ শতাংশ। এছাড়া ওষুধ ও রসায়ন খাতের লেনদেন হয় ৯ শতাংশের কিছু বেশি।

এদিকে আগের কার্যদিবসের মতো গতকালও পুঁজিবাজারে বড় উত্থান লক্ষ্য করা গেছে। গতকাল দিনের শুরু থেকেই সূচক ছিল ঊর্ধ্বমুখী। এ প্রবণতায় শেষ হয় লেনদেন। দিন শেষে ডিএসইর প্রধান সূচক বেড়েছে ৩০ পয়েন্ট। লেনদেন শেষে সূচকের অবস্থান হয় চার হাজার ৯৩৪ পয়েন্টে। সূচকের পাশাপাশি গতকাল লেনদেনও কিছুটা বাড়তে দেখা যায়। গতকাল ডিএসইতে মোট ৮৪১ কোটি টাকার শেয়ার এবং মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট কেনাবেচা হতে দেখা যায়। এর মধ্যে ব্লক মার্কেটে লেনদেন হয় ১৬ কোটি ১৯ লাখ টাকার শেয়ার। এ মার্কেটে মোট লেনদেনে অংশগ্রহণ করে ৩১টি প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে সব চেয়ে বেশি শেয়ার লেনদেন হয় বিট্রিশ আমেরিকান টোব্যাকোর শেয়ার। কোম্পানিটি গতকাল ১০ কোটি ৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..