খবর

বিভিন্ন কারাগারে বন্দি ৮২ হাজার ৬৫৪ জন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: বর্তমানে দেশের বিভিন্ন কারাগারে ৮২ হাজার ৬৫৪ বন্দি আটক আছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বন্দিদের মধ্যে আছে ৭৯ হাজার ৪৫৪ পুরুষ ও তিন হাজার ২০০ নারী। এই তথ্য গত ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত।

মন্ত্রী বলেন, দেশের জনসংখ্যা অনুপাতে কারাগারের ধারণক্ষমতা কত হবে সে বিষয়ে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত কোনো মানদণ্ড নেই। বাংলাদেশে ৬৮টি কারাগারের বর্তমান বন্দি ধারণক্ষমতা ৪২ হাজার ৪৫০ জন।

গতকাল স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে টেবিলে উত্থাপিত প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী সংসদকে এ তথ্য জানান। নোয়াখালী-৩ আসনের সংসদ সদস্য মামুনুর রশীদ কিরণের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ তথ্য দেন।

তিনি বলেন, কারাগারে ধারণক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে অতিপুরোনো ও জরাজীর্ণ কারাগারগুলোকে বৃহৎ আকারে নতুনভাবে নির্মাণ করা হয়েছে এবং এ কার্যক্রম চলমান আছে। প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন অনুযায়ী নতুনভাবে নির্মিত কেন্দ্রীয়/জেল কারাগারগুলোকে কারাগার-১ এবং পুরোনো কারাগারকে কারাগার-২ হিসেবে ব্যবহার করে বন্দি ধারণক্ষমতা বৃদ্ধি করা হয়েছে। ২০০৯ সাল থেকে এ পর্যন্ত মোট ১৭টি কারাগার নতুনভাবে নির্মাণ ও দুটি কারাগার বিদ্যমান জায়গায় রেখে সম্প্রসারণ করা হয়েছে। এর ফলে কারাগারের বন্দি ধারণক্ষমতা ১৪ হাজার ৪১৮ জন বৃদ্ধি পেয়েছে।

সরকারদলীয় সংসদ সদস্য দিদারুল আলমের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, রাজধানী ঢাকা এবং বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রামের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় জনসংখ্যা অনুপাতে পুলিশ সদস্যসংখ্যা যথেষ্ট নয়। রাজধানী ঢাকা ও চট্টগ্রামে জনবল বৃদ্ধির বিষয়ে সংশ্লিষ্ট জেলা ইউনিট থেকে প্রস্তাব পাওয়ার প্রয়োজনীয়তার নিরিখে বিষয়টি বিবেচনা করা যেতে পারে।

মন্ত্রী আরও বলেন, বর্তমান সরকারের বিগত দুই মেয়াদসহ বর্তমান মেয়াদে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের বিভিন্ন পদবির ৯ হাজার ৪৫৬টি এবং চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের বিভিন্ন পদবির দুই হাজার ১৩১টি পদ সৃজন করা হয়েছে।

সরকারদলীয় সংসদ সদস্য এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, সরকার মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছে। ‘মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ১৯৯০’ যুগোপযোগী করে ‘মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ (সংশোধন) আইন, ২০২০’ প্রণয়ন করা হয়েছে, যার ক্ষেত্রে ২৬ নভেম্বর (২০২০) গেজেট প্রকাশ করা হয়েছে। এ আইনে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে।

মাদকবিরোধী কার্যক্রম তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, ২০১৯ সালে এক লাখ ২৪ হাজার ৯৮টি মামলা করে এক লাখ ৬২ হাজার ৮৪৭ জন এবং ২০২০ সালে ৮৫ হাজার ৭১৮টি মামলা করে এক লাখ ১৩ হাজার ৫৪৩ জন অবৈধ মাদক কারবারিকে গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন
ট্যাগ ➧

সর্বশেষ..