খবর

‘বিমানের কোনো অঙ্গে ক্যানসার হলে ফেলে দিতে কুণ্ঠাবোধ করব না’

নিজস্ব প্রতিবেদক: সদ্য দায়িত্বপ্রাপ্ত বিমান বাংলাদেশের এয়ারলাইনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও সিইও ড. আবু সালেহ্ মোস্তফা কামাল বলেছেন, ‘আমি সবাইকে নিয়ে একসঙ্গে সুন্দরভাবে কাজ করতে চাই। যদি কখনও দেখি আমার কোনো অঙ্গে ক্যান্সার হয়ে গেছে, সেই অঙ্গ ফেলে দিলে বাকি অঙ্গগুলো ঠিকমতো কাজ করবে, সেক্ষেত্রে ক্যানসার-আক্রান্ত অঙ্গ ফেলে দিতে কুণ্ঠাবোধ করব না।’

গতকাল বেলা ৩টায় কুর্মিটোলায় বিমান বাংলাদেশের প্রধান কার্যালয় বলাকায় তিনি সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন।

ড. আবু সালেহ্ মোস্তফা কামাল বলেন, ‘দায়িত্ব নিয়েই আমি বিমানের সবার সঙ্গে বসেছি। আমি সবাইকে বলি, আমি যদি নির্মোহ থাকি, যদি নির্লোভ থাকি, তাহলেই বিমানে নির্ভয়ে কাজ করতে পারব। এই শব্দগুলোর শুদ্ধি অভিযান পরিচালনার সঙ্গে যোগসূত্র আছে।’

বিমানে দায়িত্ব নিয়ে প্রথম কোন কাজটিকে চ্যালেঞ্জ মনে করছেনÑজানতে চাইলে এমডি বলেন, আমার প্রথম দায়িত্ব ও স্বপ্ন বিমানের শিডিউল ঠিক রাখা। এটা আমার কাছে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। তার সঙ্গে কভিড সিচুয়েশন আছে, অন্যান্য পরিবহন সেক্টর আছে। তবে আমার আছে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ শিডিউল।’

বিমানকর্মীদের বেতন বর্তমানে কমানো হয়েছে, তা আবার কবে আগের পর্যায়ে নেয়া হবেÑএ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে এমডি বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী কভিডকালে টিকে থাকার জন্য আমাদের দুটাই পদ্ধতি ছিলÑএক. লোক কমিয়ে বাকিদের স্যালারি ঠিক রাখা; দুই. মানবিক দিক বিবেচনা করে সবাই শেয়ার করে খাওয়া (কাউকে ছাঁটাই না করে স্যালারি কমানো)। আমরা দ্বিতীয় পদ্ধতি অবলম্বন করেছি। এই সিদ্ধান্ত বিমানের পর্ষদে হয়েছে। বৈশ্বিক পরিস্থিতি, আর্থিক অবস্থাসহ সবকিছু মিলে যখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে, তখনই এ বিষয়ে পর্ষদ আবার সিদ্ধান্ত নেবে।’

ড. আবু সালেহ্ মোস্তফা কামাল গত ২৫ ফেব্রুয়ারি সকালে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও হিসেবে যোগদান করে দায়িত্বপালন শুরু করেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..