দিনের খবর বাণিজ্য সংবাদ শিল্প-বাণিজ্য

বিমানে চড়তে বাড়তি ফি আর ভ্যাট দিতে হবে ১০৭৪ টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক: হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরসহ দেশের অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক সব বিমানবন্দরে যাত্রীদের আগামীকাল থেকে যাত্রী নিরাপত্তা ও বিমানবন্দর উন্নয়ন ফি দিতে হবে। ২২ জুলাই বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করেছে।

তবে এ বাড়তি ফি এর ওপর ভ্যাট (মূসক) দিতে হবে। ২৮ জুলাই জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এ-সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করেছে। ফলে বিমানে চড়তে অভ্যন্তরীণ যাত্রীদের মূসকসহ ১০৭৪ দশমিক ৬১ টাকা আর সার্কভুক্ত দেশে গমনকারী যাত্রী ১৯৫৩ দশমিক ৮৫ টাকা বাড়তি অর্থ গুনতে হবে।

বেবিচক সূত্র জানায়, দেশে প্রথমবারের মতো যাত্রীদের কাছ থেকে এ ফি নেওয়া হচ্ছে। এর আগে বাংলাদেশে এ ধরনের কোনো ফি নেওয়া হতো না। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিমানবন্দর ও যাত্রী নিরাপত্তা উন্নয়ন ফি নেওয়া হয়। বাংলাদেশের বিমানবন্দর ও যাত্রীসেবার মানোন্নয়নে এ টাকা ব্যয় করা হবে। এর আগে এ নিয়ে কয়েকটি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে বৈঠক করে বেবিচক। তাদের অনুমোদনক্রমে এ আদেশ জারি করা হয়েছে।

বেবিচকের পরিচালক (অর্থ) মোহাম্মদ মোয়াজ্জেম হোসেন সই করা আদেশে বলা হয়, ১ আগস্ট যাত্রীদের কাছ থেকে এ ফি আদায় করা হবে। আদেশটি দেশি-বিদেশি এয়ারলাইনসগুলোকে পাঠনো হয়েছে।

ওই আদেশ বলা হয়, বেসামরিক বিমান চলাচলের ক্ষেত্রে ঢাকার হযরত শাহজালালসহ দেশের সব বিমানবন্দরে দেশ-বিদেশে ভ্রমণকারী যাত্রীদের নিরাপত্তা ও বিমানবন্দরগুলোর অবকাঠামোগত উন্নয়ন ফি দিতে হবে। এক্ষেত্রে দেশের অভ্যন্তরীণ যাত্রীদের প্রতিবার ভ্রমণে উন্নয়ন ফি ১০০ টাকা ও যাত্রী-নিরাপত্তা ফি দিতে হবে ৭০ টাকা। তবে সার্কভুক্ত দেশ ভ্রমণের ক্ষেত্রে বিমানবন্দর উন্নয়ন ফি দিতে হবে পাঁচ ডলার ও যাত্রী-নিরাপত্তা ফি দিতে হবে ছয় ডলার। সার্কভুক্ত ছাড়া অন্য দেশের ক্ষেত্রে বিমানবন্দর উন্নয়ন ফি ১০ ডলার ও নিরাপত্তা ফি দিতে হবে ১০ ডলার।

হিসাবমতে, অভ্যন্তরীণ যাত্রীদের বিমানবন্দর উন্নয়ন ফি পাঁচ ডলার বা ৪২৪ টাকা ৭৫ পয়সা (প্রতি ডলার ৮৪ দশমিক ৯৫ টাকা) এবং যাত্রী নিরাপত্তা ফি ছয় ডলার বা ৫০৯ দশমিক ৭০ টাকা দিতে হবে। টাকায় দুই খাতে মোট ৯৩৪ দশমিক ৪৫ টাকা বাড়তি দিতে হবে। এর ওপর ১৫ শতাংশ হারে মূসক ১৪০ দশমিক ১৬ টাকা। মূসকসহ প্রতি যাত্রীকে বাড়তি দিতে হবে ১০৭৪ দশমিক ৬১ টাকা।

আর সার্কভুক্ত দেশ অর্থাৎ মধ্যপাচ্যে গমন করা যাত্রীদের বিমানবন্দর উন্নয়ন ফি ১০ ডলার মানে ৪৪৯ দশমিক ৫০ টাকা আর যাত্রী-নিরাপত্তা ফি ১০ ডলার মানে ৪৪৯ দশমিক ৫০ টাকা দিতে হবে। এর ওপর ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট ২৫৪ দশমিক ৮৫ টাকা। ভ্যাটসহ প্রতি যাত্রীকে মোট দিতে হবে ১৯৫৩ দশমিক ৮৫ টাকা।

এ বিষয়ে বেবিচক চেয়ারম্যান এয়ারভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান বলেছেন, ‘বিমানবন্দরগুলোতে আগামী ১ আগস্ট থেকে যাত্রীদের কাছ থেকে এ ফি আদায় করা হবে। সরকারের সিদ্ধান্তে এ ফি আদায়ের নির্দেশনা দেওয়া হয়। এতে করে বেবিচকের রাজস্ব আয় বাড়বে।’

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..