আজকের পত্রিকা

বিমা ছাড়া কোনো খাতই দাঁড়াতে পারেনি

রুবাইয়াত রিক্তা: এক মাস ধরে ধারাবাহিক পতনে রয়েছে পুঁজিবাজার। মাঝে মাঝে দু’একদিন সূচক সামান্য ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে। গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক চার হাজার ৮৮৮ পয়েন্টে নেমে এসেছে। গত প্রায় তিন বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থানে নেমে গেছে বাজার। আর লেনদেনে দৈন্যদশা তো দীর্ঘদিন ধরেই চলছে। লেনদেন সর্বোচ্চ ৫০০ কোটি টাকার ঘরে আটকে আছে। গতকালও প্রায় সব খাতে দরপতন হয়েছে। যে কারণে ৬০ শতাংশ কোম্পানি দর হারিয়েছে। একমাত্র ব্যতিক্রম ছিল বিমা খাত। এ খাতে লেনদেন বৃদ্ধির পাশাপাশি দরও বেড়েছে। এছাড়া বিবিধ খাতে একটি কোম্পানির শেয়ারের চাহিদার কারণে এ খাতেও লেনদেন বেড়েছে। গতকাল লেনদেনের শীর্ষে থাকা অধিকাংশ কোম্পানি দরপতনে ছিল।
মোট লেনদেনের ১৯ শতাংশ বা ৭০ কোটি টাকা লেনদেন হয় প্রকৌশল খাতে। এ খাতে ৮১ শতাংশ কোম্পানির দরপতন হয়। শীর্ষে থাকা ন্যাশনাল টিউবসের ২০ কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি সাত টাকা ৪০ পয়সা দর কমেছে। মুন্নু জুট স্টাফলার্সের ১৯ কোটি ৩৭ লাখ টাকা লেনদেন হয়; দরপতন হয় ১১৩ টাকা ৭০ পয়সা। কোম্পানিটি দরপতনের শীর্ষ দশের তালিকায় স্থান পায়। ১৭ শতাংশ লেনদেন হয় ওষুধ ও রসায়ন খাতে। এ খাতে ৮১ শতাংশ কোম্পানি
দরপতনে ছিল। স্কয়ার ফার্মার সোয়া ১৫ কোটি টাকা লেনদেন হলেও ছয় টাকা ৮০ পয়সা দরপতন হয়। জেএমআই সিরিঞ্জের সাড়ে সাত কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি ২১ টাকা ৯০ পয়সা দরপতন হয়। ওয়াটা কেমিক্যালের প্রায় সাত কোটি টাকা লেনদেন হয়; দরপতন হয় ৩৫ টাকা ৭০ পয়সা। এ দুটি কোম্পানি দরপতনের শীর্ষ দশের তালিকায় উঠে আসে। আট শতাংশ বেড়ে গতকাল বিমা খাতে লেনদেন হয় ১৫ শতাংশ। এ খাতে ৮৯ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের তালিকায় ৮০ শতাংশ ছিল বিমা খাতের দখলে। প্রায় ১০ শতাংশ বেড়ে গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে। এছাড়া এ তালিকায় অবস্থান করে প্রভাতী ইন্স্যুরেন্স, রিপাবলিক, ন্যাশনাল লাইফ, সোনার বাংলা, কর্ণফুলী, রূপালী ও ফেডারেল ইন্স্যুরেন্স। এসব শেয়ারের দর প্রায় সাত থেকে ১০ শতাংশ বেড়েছে। বিবিধ খাতে লেনদেন বেড়েছে চার শতাংশ। এ খাতের সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজের সোয়া ১১ কোটি টাকা লেনদেন হয়; দর বেড়েছে ছয় টাকা ৭০ পয়সা। কোম্পানিটি দর বৃদ্ধিতে তৃতীয় অবস্থানে ছিল। আর কোনো খাতেই উল্লেখযোগ্য লেনদেন হয়নি।
ব্যাংক খাতে ৩০ শতাংশ কোম্পানির দর
বেড়েছে। বস্ত্র খাতে ১০ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। স্টাইল ক্রাফটের সাড়ে সাত কোটি টাকা লেনদেন হয়; দরপতন হয় ৩২ টাকা ৭০ পয়সা। জ্বালানি খাতের ইউনাইটেড পাওয়ারের সাত কোটি টাকা লেনদেন হয়; দর বেড়েছে পাঁচ টাকা ৭০ পয়সা। মিউচুয়াল ফান্ড খাতে ৪০ শতাংশ ইউনিটের দর বেড়েছে। আইসিবি এএমসিএল সেকেন্ড মিউচুয়াল ফান্ড দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশে অবস্থান করে। এছাড়া ছোট খাতগুলোর মধ্যে সিরামিক, তথ্য ও প্রযুক্তি, পাট, সেবা ও আবাসন, টেলিযোগাযোগ, সেবা ও আবাসন খাতে কোনো কোম্পানির দর বাড়েনি।

সর্বশেষ..