প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

বিশ্বমানের সেবায় ইউনিক গ্রুপ

ইউনিক গ্রুপের ইতিহাস জানার জন্য আমাদের ফিরে যেতে হবে আশির দশকে। ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের দূরদর্শিতা, দলগত চেষ্টা, গ্রাহকদের সমর্থন, প্রতিশ্রুতি তাদের ইতিহাসের সঙ্গে জড়িয়ে আছে। একদল দক্ষ কর্মী ও ভবিষ্যতের স্বপ্নও তাদের সেই ইতিহাসের সঙ্গী। শুরু থেকে আজও উল্লিখিত বিষয়গুলো তাদের সঙ্গী হয়ে আছে।

প্রতিষ্ঠাতা মোহা. নূর আলী। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটিতে ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন। ১৯৮৩ সালে জনশক্তি রফতানি দিয়ে ব্যবসা শুরু করেন তিনি। দক্ষ জনশক্তি রফতানির জন্য গড়ে তোলেন প্রশিক্ষণকেন্দ্র। চালু করেন ট্রাভেল এজেন্সি। এরপর নানা দিকে ব্যবসা সম্প্রসারণের পরিকল্পনা করেন। ১৯৮৭ সালে এয়ার ট্রাভেল খাতে বিনিয়োগ করেন। ১৯৯১ সালে আবাসন খাতে। ওই বছর প্রতিষ্ঠা করেন বোরাক রিয়েল এস্টেট। পরের বছর ১৯৯২ সালে ব্যাংকিং খাতে বিনিয়োগ করেন। বিদ্যুৎ, পর্যটন প্রভৃতি খাতে তার বিনিয়োগ রয়েছে। এভাবে সম্প্রসারিত হতে থাকে তার ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান।

আতিথেয়তা, আবাসন, অবকাঠামো, টেলিযোগাযোগ, শিপিং, শেয়ার ম্যানেজমেন্ট, ব্যাংক, বিমা, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, জনশক্তি ব্যবস্থাপনা, সিরামিক ইন্ডাস্ট্রি, বিদ্যুৎ, মানবসম্পদ, সংবাদপত্রসহ শিল্প-সংস্কৃতি খাতে ব্যবসা সম্প্রসারণ করেছেন। তার প্রতিষ্ঠানগুলোয় প্রায় ২০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে। অস্থায়ীভাবে কর্মরত আরও ১০ হাজার মানুষ। ভবিষ্যতে নতুন নতুন খাতে বিনিয়োগের মাধ্যমে কর্মসংস্থান তৈরিতে ভূমিকা রাখতে চান তিনি। বিশেষ করে বাংলাদেশের পর্যটন খাতের সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে চান। গুরুত্ব দিয়েছেন জনশক্তি রফতানি খাতকে।

আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ নিয়েছেন মোহা. নূর আলী। ছাত্রজীবনে রাজনীতি করতেন। ইতোমধ্যে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজবিজ্ঞান বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেছেন। জনশক্তি রফতানিকারকদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সিসের (বায়রা) প্রেসিডেন্ট ছিলেন তিনি। বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) সদস্য তিনি।

কর্মীদের সবার জন্য সমান সুযোগ দেয় ইউনিক গ্রুপ। কর্মীবান্ধব গ্রুপ হিসেবে তাদের সুনাম রয়েছে। নিরাপদ কর্মস্থল নিশ্চিত করে চলেছে গ্রুপটি। কর্মীদের সুস্বাস্থ্যের জন্য নানা পদক্ষেপ নিয়েছে তারা। এর মধ্যে রয়েছে, সব কর্মীর জন্য হেপাটাইটিস-বি চেকআপের ব্যবস্থা ও টিকাদান কর্মসূচি।

ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টস লিমিটেড

ইউনিক গ্রুপের অধীনে রয়েছে ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টস লিমিটেড। বাংলাদেশের বেসরকারি খাতে পাঁচতারকা মানের হোটেলসেবা প্রদানে শীর্ষে রয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ ও চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত এ প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানটিতে চেয়ারপারসনের দায়িত্ব পালন করছেন সেলিনা আলী। দেশের রিয়েল এস্টেট, হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট, ট্যুরিজম ও ব্যাংকিং খাতের উন্নয়নে তার ভূমিকা রয়েছে।

এ প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক মানের হোটেল সুবিধা দিতে প্রতিষ্ঠা করেছে দ্য ওয়েস্টিন। হোটেলটি পাঁচতারকা মানের। আধুনিক সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা রয়েছে এখানে। ২০০৭ সালের ১ জুলাই এর যাত্রা শুরু। রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে আট কিলোমিটার দূরে গুলশানে এর অবস্থান। ‘ওয়েস্টিন টু’ নামে নতুন একটি হোটেল নির্মাণ করার পরিকল্পনা রয়েছে ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টস লিমিটেডের। আন্তর্জাতিক হোটেল চেইন হায়াত ও ওয়েস্টিন যৌথভাবে হোটেলটি পরিচালনা করবে। দেশের বাইরেও হোটেল নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে তাদের।

ওয়েস্টিন ২০১৩ সালে সাউথ এশিয়ান ফেডারেশন অব অ্যাকাউনট্যান্টস (সাফা) অ্যাওয়ার্ড অর্জন করে। একই বছর ওয়ার্ল্ড ট্রাভেল অ্যাওয়ার্ড নিজেদের করে নেয় তারা। ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড সেক্রেটারিজ অব বাংলাদেশ (আইসিএসবি) থেকে ২০১৪ সালে সিলভার অ্যাওয়ার্ড পায় ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টস লিমিটেড। ২০১২, ২০১৪, ২০১৫ ও ২০১৬ সালে ওয়ার্ল্ড লাক্সারি হোটেল অ্যাওয়ার্ডসে ভূষিত হয় তারা। এসব অর্জনকে অনুপ্রেরণা হিসেবে বিবেচনা করে প্রতিষ্ঠানটি।

 

অঙ্গপ্রতিষ্ঠান

ইউনিক ইস্টার্ন

দ্য ওয়েস্টিন, ঢাকা

বোরাক ট্রাভেলস লিমিটেড

ইউনিক পাওয়ার লিমিটেড

ইউনিক রিফাইনারি লিমিটেড

হানসা ফ্যাসিলিটি ম্যানেজমেন্ট

ইউনিক ট্যুরস অ্যান্ড ট্র্যাভেলস

ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টস লিমিটেড

ইউনিক ভোকেশনাল ট্রেনিং সেন্টার

ইউনিক শেয়ার ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড

বোরাক রিয়েল এস্টেট প্রা. লিমিটেড

ইউনিক ইস্টার্ন প্রাইভেট লিমিটেড

ইউনিক প্রপার্টি ডেভেলপমেন্ট লিমিটেড

ইউনিক সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজ প্রা. লিমিটেড

 

হ করপোরেট টক ডেস্ক