প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

বিসিকের হেমন্তমেলা ও কারুশিল্প প্রদর্শনী

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটিরশিল্প করপোরেশনের (বিসিক) উদ্যোগে পাঁচ দিনব্যাপী ‘হেমন্তমেলা ১৪২৩ ও ত্রৈমাসিক কারুশিল্প প্রদর্শনী’ শুরু হয়েছে। গতকাল রোববার রাজধানীর মতিঝিলের বিসিক ভবনে এ মেলার উদ্বোধন করা হয়। এতে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ৬০টি কুটির শিল্পপ্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। বিসিকের পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) মো. ইফতেখারুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে বিসিকের পরিচালক (নকশা ও বিপণন) মো. মোস্তফা কামাল এ মেলা উদ্বোধন করেন। এতে বিসিকের প্রধান নকশাবিদ বশীর আহমেদ শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। এতে বিসিকের পরিচালক (নকশা ও বিপণন) মো. মোস্তফা কামাল বলেন, বিসিক ডিজাইন সেন্টার হলো সেন্টার অব এক্সিলেন্স। এখানে পটুয়া কামরুল হাসান, শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী ও শিল্পী এমদাদ হোসেনের মতো বহু জ্ঞানীগুনী শিল্পী কাজ করেছেন। এখানে নতুন নতুন ডিজাইন উদ্ভাবনসহ ক্ষুদ্র, কুটির ও হস্তশিল্প খাতের উদ্যোক্তাদের উৎপাদিত পণ্যের বিপণন সহায়তা বৃদ্ধির লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে।

বিসিকের প্রধান নকশাবিদ বশীর আহমেদ বলেন, বিসিকের নকশা কেন্দ্রের মাধ্যমে ব্লক, বাটিক প্রিন্টিং, পুতুল তৈরি, স্ক্রিন প্রিন্টিং, প্যাকেজিং, বাঁশ-বেতের কাজ, পাটজাত হস্তশিল্প, চামড়াজাত পণ্য, ধাতব শিল্প, বুনন শিল্প ও ফ্যাশন ডিজাইন ইত্যাদি ১৩টি ক্ষেত্রে এ পর্যন্ত ২৭ হাজার ৫৪৮ জন উদ্যোক্তাকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। নকশা ও নমুনা উদ্ভাবন ও বিতরণ করা হয়েছে যথাক্রমে ৩২ হাজার ৫২০ এবং ৬৬ হাজার ৩৯৩টি। এ পর্যন্ত মেলা ও প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়েছে ১৭১টি।

সভাপতির বক্তব্যে পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) মো. ইফতেখারুল ইসলাম খান বলেন বিসিকের নকশা কেন্দ্র থেকে প্রশিক্ষণ গ্রহণকারীদের আধুনিকায়নের দিকে মনোযোগ দিতে হবে।