পুঁজিবাজার

বেশিরভাগ শেয়ারদর ও লেনদেন কমলেও সূচক ইতিবাচক

নিজস্ব প্রতিবেদক: সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে উভয় বাজারে ইতিবাচক গতি ফিরেছে। বেশিরভাগ শেয়ারের দর কমলেও সূচক ইতিবাচক ছিল। তবে লেনদেন কমেছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল ৪৯ শতাংশ কোম্পানির দরপতন হয়। দর বেড়েছে ৩৬ শতাংশ কোম্পানির। বেলা ১১টার পর বিক্রির চাপ বাড়লেও সূচক নেমে যেতে থাকে। সাড়ে ১২টার পর ফের কেনার চাপ বাড়লে সূচক ঊর্ধ্বমুখী হতে থাকে। শেষ পর্যন্ত ডিএসইএক্স সূচক ২০ পয়েন্ট ইতিবাচক ছিল। বাকি দুই সূচকও বেড়েছে। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক, শেয়ারদর ও লেনদেনে একই চিত্র দেখা গেছে।
বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২০ দশমিক ৭৮ পয়েন্ট বা দশমিক ৪১ শতাংশ বেড়ে পাঁচ হাজার ৩৩ দশমিক ৭৯ পয়েন্টে অবস্থান করে।
ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক চার দশমিক ৪১ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৭ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ১৭১ দশমিক ৪৮ পয়েন্টে অবস্থান করে। আর ডিএস৩০ সূচক আট দশমিক ৫৫ পয়েন্ট বা দশমিক ৪৮ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৭৬৬ দশমিক ৭৬০ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন তিন লাখ ৭৫ হাজার ৯৬২ কোটি ৩৭ লাখ ৪৯ হাজার ১৩৩ টাকা হয়। ডিএসইতে লেনদেন হয় ৩৭১ কোটি ৬১ লাখ ৩৯ হাজার ৩৯০ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৪২৭ কোটি ৬৫ লাখ ৮১ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন কমেছে ৫৬ কোটি টাকা। এদিন ৯ কোটি ৬৯ লাখ ৩৪ হাজার ২৬ শেয়ার এক লাখ ১৫ হাজার ৯৯৫ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৫৩ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১২৯টির, কমেছে ১৭২টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৫২টির দর।
গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে ন্যাশনাল টিউবস। কোম্পানিটির ৩২ কোটি ৬১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ১২ টাকা ৮০ পয়সা। এরপর বীকন ফার্মার ১২ কোটি ৩৮ লাখ টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে ৮০ পয়সা। তৃতীয় অবস্থানে থাকা মুন্নু সিরামিকের ১২ কোটি ৩৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে এক টাকা ৩০ পয়সা। স্টাইল ক্রাফটের ১২ কোটি ১১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। মুন্নু জুট স্টাফলার্সের ১১ কোটি ৫৬ লাখ টাকা লেনদেন হয়। এছাড়া ফরচুন শুজের আট কোটি ৮০ লাখ টাকার, সিলকো ফার্মার সাড়ে আট কোটি টাকার, বিএসসিসিএলের সাত কোটি ৮৫ লাখ টাকার, খুলনা পাওয়ারের প্রায় আট কোটি টাকার, বঙ্গজের ছয় কোটি ১৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।
৯ দশমিক ৯৭ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে ন্যাশনাল টিউবস। ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্সের দর ছয় দশমিক ৬৬ শতাংশ, বিএসসিসিএলের ছয় দশমিক ১৪ শতাংশ, এ্যাপোলো ইস্পাতের পাঁচ দশমিক ৩৫ শতাংশ, জিএসপি ফাইন্যান্সের পাঁচ দশমিক শূন্য সাত শতাংশ, মুন্নু জুট স্টাফলার্সের চার দশমিক ৭৩ শতাংশ, আইপিডিসি ফাইন্যান্সের সাড়ে চার শতাংশ, ইবিএল এনআরবি মিউচুয়াল ফান্ডের দর চার দশমিক ৩৪ শতাংশ বেড়েছে।
সাত দশমিক ৩৫ শতাংশ কমে দরপতনের শীর্ষে উঠে আসে প্রাইম ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড। ভিএফএস থ্রেড ডায়িংয়ের সাত দশমিক ৩৩ শতাংশ, কে অ্যান্ড কিউ’র পাঁচ দশমিক ৮৮ শতাংশ, ঢাকা ইন্স্যুরেন্সের পাঁচ দশমিক ৬৩ শতাংশ, সাভার রিফ্র্যাক্টরিজের পাঁচ দশমিক ৫৭ শতাংশ, এসইএমএল এফবিএসএল গ্রোথ ফান্ডের সাড়ে পাঁচ শতাংশ, নর্দান জুটের পাঁচ দশমিক ২১ শতাংশ, আরামিট সিমেন্টের পাঁচ শতাংশ, ঢাকা ডায়িংয়ের পাঁচ শতাংশ, দুলামিয়া কটনের দর চার দশমিক ৮৪ শতাংশ কমেছে।
সিএসইতে গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক ১৭ দশমিক ৬৮ পয়েন্ট বা দশমিক ১৯ শতাংশ বেড়ে ৯ হাজার ২৮৪ দশমিক ১৫ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২৮ দশমিক ১০ পয়েন্ট বা দশমিক ১৮ শতাংশ বেড়ে ১৫ হাজার ২৯২ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২৫১ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১০০টির, কমেছে ১১৩টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩৮টির দর।
সিএসইতে এদিন ১৩ কোটি ৬৬ লাখ ৮৬ হাজার ৬৪২ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ১৫ কোটি ৪০ লাখ ৫২ হাজার ২০৯ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন কমেছে এক কোটি ৭৩ লাখ টাকা। সিএসইতে গতকাল লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে ডরিন পাওয়ার। কোম্পানিটির তিন কোটি ৩৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। সি পার্ল রিসোর্টের প্রায় ৫৪ লাখ টাকার, বেক্সিমকোর ৫৩ লাখ টাকার, মুন্নু সিরামিকের ৩৭ লাখ টাকার, বিএসসির ৩৬ লাখ টাকার, প্রিমিয়ার ব্যাংকের ৩৫ লাখ টাকার, বিএসসিসিএলের ২৭ লাখ টাকার, বীকন ফার্মার ২৫ লাখ টাকার, সিলকো ফার্মার ২৫ লাখ টাকার ও খুলনা পাওয়ারের ২৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

সর্বশেষ..