প্রচ্ছদ প্রথম পাতা

বেশি দামে আলু বিক্রির দায়ে সাত ব্যবসায়ীর অর্থদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক: সরকার নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি দামে আলু বিক্রির দায়ে রাজধানীর মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেটের সাত ব্যবসায়ীকে অর্থদণ্ড দিয়েছেন র‌্যাব-৩ পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল দুপুরে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে সহায়তা করেন কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু। তিনি বলেন, সরকার হিমাগারে কেজিপ্রতি আলুর দাম ২৭ টাকা, পাইকারিতে ৩০ এবং খুচরা পর্যায়ে সর্বোচ্চ ৩৫ টাকা নির্ধারণ করেছে। তাদের কাছে অভিযোগ ছিল মোহাম্মদ কৃষি মার্কেটের পাইকার-আড়তদাররা নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি দামে আলু বিক্রি করছেন। এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সেখানে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানে দেখা যায়, আড়তে প্রতি কেজি আলু ৪০ থেকে ৪৫ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। অর্থাৎ সরকারের নির্ধারিত দামের চেয়ে ১০ থেকে ১৫ টাকা বেশি মূল্যে বিক্রি করা হচ্ছে। এ অপরাধে কৃষি মার্কেটের মেসার্স তানহা এন্টারপ্রাইজের মালিক শাহাবুদ্দিনকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের জেল, মায়ের দোয়া বাণিজ্যালয়ের মালিক মমিন খানকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। একই অভিযোগে মুন্সীগঞ্জ বাণিজ্যালয়ের মালিক মোহাম্মদ লিটন শেখকে এক লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে তিন মাসের কারাদণ্ড, মেসার্স আল্লাহর দান ভাণ্ডারের এমএ হোসেনকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ড, মেসার্স মানিক এন্টারপ্রাইজের মালিক ফারুক হোসেনকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ড, নিউ বিক্রমপুর বাণিজ্যালয়ের মো. হোসেন বাবুলকে এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের কারাদণ্ড এবং মেসার্স নিউ শাহআলমের মালিক শাহ আলমকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ড দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন
ট্যাগ ➧

সর্বশেষ..