মত-বিশ্লেষণ

ব্যাংকের হিসাব রক্ষণাবেক্ষণ ফি এবং আমার শিক্ষক

রাতের খাবার শেষ করার পর টিভি দেখছিলাম। দেশে বিভিন্ন জায়গায় ঘটে যাওয়া অনেক খবর। এমন সময় মোবাইলের রিংটোন বেজে উঠল। আমার এক স্কুল শিক্ষক ফোন দিয়েছেন।

আমিঃ আসসালামু আলাইকুম স্যার। কেমন আছেন?
স্যারঃ ওয়ালাইকুমুস সালাম। আলহামদুলিল্লাহ, ভালো আছি। আচ্ছা তুই আমাকে একটা তথ্য দে তো?

আমিঃ জ্বী স্যার, বলেন?
স্যারঃ আজ ব্যাংক থেকে আমার ব্যাংক হিসাবের একটা স্টেটমেন্ট তুলেছিলাম। দেখলাম হিসাব রক্ষণাবেক্ষণ ফি বাবদ টাকা চার্জ করেছে। হিসাব রক্ষণাবেক্ষণ ফি বাবদ ব্যাংক কত টাকা চার্জ করতে পারবে, আমাকে একটু বলতো?

আমিঃ আপনার কাছে কি কাগজ কলম আছে? লিখে রাখলে আপনার মনে থাকবে।
স্যারঃ তুই একটু ফোনটা ধরে থাক।

আমিঃ জ্বী স্যার।
স্যারঃ এবার বল। আমি কাগজ, কলম নিয়ে এসেছি।

আমিঃ আপনার যদি কোন ব্যাংকে চলতি হিসাব থাকে, তাহলে প্রতি ছয় মাসে ব্যাংক আপনার হিসাব রক্ষণাবেক্ষণের ফি (Account Maintenance Fee) বাবদ সর্বোচ্চ ৩০০ টাকা চার্জ করতে পারবে। কোন ব্যাংক চাইলে কম চার্জ করতে পারবে কিন্ত বেশি করতে পারবে না।

স্যারঃ আমার তো সেভিংস একাউন্ট। তার জন্য ফি কত টাকা?

আমিঃ সেভিংস বা সঞ্চয়ী হিসাবের ক্ষেত্রে কয়েকটা ভাগ আছে। আপনি একটু এক, দুই করে লিখে নিয়েন।
স্যারঃ ঠিক আছে, বল?

আমিঃ ১. আপনার হিসাবে যদি দশ হাজার টাকা পর্যন্ত গড় আমানত থাকে, তাহলে ব্যাংক কোন রক্ষণাবেক্ষণ ফি চার্জ করবে না।

২. আপনার হিসাবে যদি ১০ হাজার টাকার বেশি কিন্তু ২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত গড় আমানত থাকে, তাহলে ব্যাংক সর্বোচ্চ ১০০ টাকা রক্ষণাবেক্ষণ ফি বাবদ চার্জ করতে পারবে।

৩. আপনার যদি ছয় মাসে ২৫ হাজার টাকার বেশি কিন্তু ২ লক্ষ পর্যন্ত গড় আমানত থাকে, তাহলে ব্যাংক সর্বোচ্চ ২০০ টাকা রক্ষণাবেক্ষণ ফি বাবদ চার্জ করতে পারবে।

৪. আপনার হিসাবে যদি ছয় মাসে ২ লক্ষ টাকার বেশি কিন্তু ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত গড় আমানত থাকে, তাহলে ব্যাংক সর্বোচ্চ ২৫০ টাকা রক্ষণাবেক্ষণ ফি বাবদ চার্জ করতে পারবে।

৫. সব শেষে, আপনার যদি ১০ লক্ষ টাকার অধিক গড় আমানত থাকে, তাহলে ব্যাংক সর্বোচ্চ ৩০০ টাকা রক্ষণাবেক্ষণ ফি বাবদ চার্জ করতে পারবে।

স্যারঃ এর বেশি তাহলে চার্জ করতে পারবে না?
আমিঃ না, এখন এর বেশি চার্জ করতে পারবে না। তবে পরবর্তীতে বাংলাদেশ ব্যাংক যদি হিসাব রক্ষণাবেক্ষণ ফি পরিবর্তনের জন্য কোন নতুন সার্কুলার দেয়, তখন ব্যাংকগুলো সেই নিয়ম মেনে চলবে।

স্যারঃ এই ফি মাসে নাকি বছরে চার্জ করবে?
আমিঃ এটা প্রতি ৬ মাস অন্তর চার্জ করবে। আমি হিসাব রক্ষণাবেক্ষণ ফি বাবদ যে কথাগুলো আপনাকে বললাম, এগুলো প্রতিটি ব্যাংকের শাখাসমূহের দর্শনীয় স্থানে প্রদর্শন করার বাধ্যবাধকতা আছে, যেন সবাই দেখতে পারে।
স্যারঃ এটা তো খুবই ভালো দিক।

আমিঃ বাংলাদেশ ব্যাংক চায়, সকল মানুষ ব্যাংকমুখী হোক। সেজন্যই নানা উদ্যোগ।
স্যারঃ ঠিক আছে, বিষয়টা জানা হল। আর বেশি কথা বাড়াবো না। রাত হয়েছে। ভালো থাকিস।

আমিঃ জ্বী স্যার, দোয়া করবেন।

লেখক-রিয়াজুল হক, অর্থনৈতিক বিশ্লেষক এবং যুগ্ম পরিচালক, বাংলাদেশ ব্যাংক

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..