দিনের খবর প্রচ্ছদ শেষ পাতা

ব্যাংকে ব্যবহৃত ফরম সহজ করা হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক: হিসাব খোলা থেকে শুরু করে সব ধরনের ব্যাংক সেবার ফরম বেশ জটিল হওয়ায় সেবা নিতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেন গ্রাহকরা। অনেক সময় না বুঝে ভুলও করে ফেলেন কেউ কেউ। এ কারণে ব্যাংকে ব্যবহার করা ফরমগুলো সহজ করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। চলতি সপ্তাহের মধ্যেই ব্যাংকে ব্যবহৃত সব ধরনের ফরম সহজ করার উপায় বের করার নির্দেশনাও রয়েছে এ-সংক্রান্ত কমিটির সদস্যদের ওপর।
জানা গেছে, গত ৫ সেপ্টেম্বর অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের প্রধান উদ্ভাবন কর্মকর্তার দফতর থেকে এ-সংক্রান্ত কমিটি গঠনের কথা জানিয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। এতে বলা হয়, গত ২২ আগস্ট মন্ত্রিপরিষদ সচিবের সভপতিত্বে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে অনুষ্ঠিত বার্ষিক উদ্ভাবনী কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নবিষয়ক পর্যালোচনা সভায় ব্যাংকে ব্যবহার করা ফরমগুলো সহজ করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের অতিরিক্ত সচিব এবিএম রুহুল আজাদকে প্রধান করে একটি কমিটি গঠন করে অর্থ মন্ত্রণালয়।
কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের যুগ্ম সচিব ও প্রধান উদ্ভাবন কর্মকর্তা মাকসুরা নূর এনডিসি, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপসচিব শিরিন সবনম, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের উপসচিব ও উদ্ভাবন দলের সদস্য সচিব মো. জেহাদ উদ্দিন প্রমুখ। এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রকল্প, বাংলাদেশ ব্যাংক, বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ), সোনালী ব্যাংক ও বাংলাদেশ ইনস্টিটিউ অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের (বিআইবিএম) একজন করে প্রতিনিধি এই কমিটিতে রয়েছেন।
ওই কমিটিকে সেবাগ্রহীতার সময়, খরচ, যাতায়াত ও ভোগান্তি কমানোর জন্য ব্যাংকিং সেবা গ্রহণে ব্যবহার করা ফরমগুলোর ক্ষেত্রে ১৫ কর্মদিবসের মধ্যে কাজ সম্পন্ন করতে বলা হয়েছে। কমিটিকে বেঁধে দেওয়া সময়ের ১০ কর্মদিবস এরই মধ্যে পার হয়েছে। চলতি সপ্তাহের মধ্যেই তাদের এ-সংক্রান্ত কাজ শেষ করতে হবে। এক্ষেত্রে কমিটিকে উপযুক্ত যেকোনো কর্মকর্তাকে সভায় আমন্ত্রণ জানানো এবং প্রয়োজনে সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। প্রয়োজনে এ-সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ ও কর্মশালা আয়োজনে সহযোগিতা দেওয়া হবে বলেও প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে।
সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয়ে অতিরিক্ত সচিব এবিএম রুহুল আজাদের সভাপতিত্বে এ-সংক্রান্ত গঠিত কমিটির একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে বাংলাদেশ ব্যাংক, বিএফআইইউ, বিআইবিএম এবং সোনালী ব্যাংকের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
জানা গেছে, বিভিন্ন ব্যাংকে গ্রাহকদের দ্বারা পূরণীয় ৭৫টি ফরম চিহ্নিত করে সেগুলো বৈঠকে উপস্থান করা হয়। এসব ফরমের বিষয়ে অতিরিক্ত সচিব এবিএম রুহুল আজাদ বলেন, বিভিন্ন ধরনের ফরম বিশেষ করে হিসাব খোলার ফরমটি আসলেই জটিল এবং পূরণ করা কষ্টসাধ্য। এছাড়া ফরমটিতে প্রয়োজনের অতিরিক্ত বেশ কিছু তথ্য চাওয়া হয়। এটা ফরম নয়, রীতিমতো একটি পুস্তিকার আকার ধারণ করেছে।’
বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, ব্যাংকগুলো নাগরিক সেবা, প্রাতিষ্ঠানিক সেবা এবং অভ্যন্তরীণ সেবা এ তিন ধরনের সেবা দিয়ে থাকে। এক্ষেত্রে বিভিন্ন ব্যাংকে ব্যবহার করা ফরমগুলোর মধ্য থেকে ২০ থেকে ২৫টি ফরম নির্বাচন করে দুই থেকে তিনটি ফরমের জন্য বিভিন্ন ব্যাংকের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে টিম গঠন করে দায়িত্ব দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন কমিটির সদস্যরা। দায়িত্বপ্রাপ্ত টিম ফরম সহজীকরণে তাদের প্রস্তাবনা পরবর্তী বৈঠকে উপস্থাপন করবে। এছাড়া এ-সংক্রান্ত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে সাধারণ মানুষ অথবা স্কুলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ফরমগুলো ‘ইউজার টেস্ট’ করা যেতে পারে বলেও মত দেন কমিটির সদস্যরা।

ট্যাগ »

সর্বশেষ..