দিনের খবর প্রচ্ছদ প্রথম পাতা

ব্যাংক ও আর্থিক খাতের আধিপত্য অব্যাহত

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজারে সম্প্রতি সবচেয়ে বেশি আধিপত্য দেখা যাচ্ছে ব্যাংক এবং আর্থিক খাতের শেয়ার। যে কারণে এই দুই খাতের বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারদরও ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় রয়েছে। মূলত খাত দুটিতে তালিকাভুক্ত বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারদর কম থাকার কারণেই এখানে বিনিয়োগ বাড়তে দেখা যাচ্ছে। গতকালের বাজারেও তেমন পরিস্থিতি প্রতিফলিত হয়। এই নিয়ে পরপর দু’দিন বিনিয়োগকারীদের আলোচনার শীর্ষে ছিল খাতটি।

গতকালের বাজার পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, আগের কার্যদিবসের মতো বেশিরভাগ খাতের শেয়ারে ছিল বিক্রয় চাপ। তবে ভিন্ন ছিল এ দুই খাত। লেনদেনের শুরু থেকেই এই দুই খাতের অধিকাংশ কোম্পানি শেয়ারের বিপরীতে বিক্রেতার চেয়ে ক্রেতার সংখ্যা বেশি পরিলক্ষিত হয়। দিন শেষে বাড়তে দেখা সিংহভাগ কোম্পানির শেয়ারদর। বাজার চিত্রে দেখা যায়, গতকাল ব্যাংক খাতে তালিকাভুক্ত ৩০ কোম্পানির দর কমেছে মাত্র দুটি প্রতিষ্ঠানের। একইভাবে দিন শেষে আর্থিক খাতের তালিকাভুক্ত ২৩ কোম্পানির মধ্যে দর কমতে দেখা যায় মাত্র দুটি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের।

এদিকে খাতভিত্তিক লেনদেনে চোখ রাখলে দেখা যায়, দিন শেষে মোট লেনদেনে ব্যাংক খাতের ১০ এবং আর্থিক খাতের অবদান ছিল ৯ শতাংশ। তবে গতকাল লেনদেনের শীর্ষে দেখা যায় বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতকে। দিন শেষে মোট লেনদেনে এ খাতের অবদান ছিল ১৬ শতাংশের কিছু বেশি।

অন্যদিকে গতকাল দিন শেষে ডিএসইতে সূচকের উত্থান দেখা যায়, আট পয়েন্ট। লেনদেন শেষে সূচকের অবস্থান হয় পাঁচ হাজার ৮৩৬ পয়েন্টে। তবে সূচক বাড়লেও লেনদেন কিছুটা কমেছে। গতকাল ডিএসইতে মোট এক হাজার ২১৩ কোটি টাকার শেয়ার এবং মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট কেনাবেচা হয়। এর মধ্যে ২১ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয় ব্লক মার্কেটে।

এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ছয় কোটি ৪৮ লাখ ৭০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে আল আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংকের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দুই কোটি ৯৫ লাখ টাকার রবি আজিয়াটার এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ দুই কোটি ৩৯ লাখ ৬২ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে এসএস স্টিলের।

এছাড়া বাংলাদেশ সাবমেরিন কেব্লের ৯৮ লাখ টাকার, বেক্সিমকোর ৯৭ লাখ ৪৮ হাজার, ব্র্যাক ব্যাংকের ৬৪ লাখ ৪৮ হাজার, বিবিএসের ৪৮ লাখ ৭৫ হাজার এবং বিডি ফাইন্যান্সের ১৪ লাখ ১৮ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..