প্রচ্ছদ প্রথম পাতা বাজার বিশ্লেষণ

ব্যাংক ও আর্থিক খাতের চাহিদা বাড়লেও বাকিগুলোয় দরপতন

রুবাইয়াত রিক্তা: পুঁজিবাজারে গতকাল ব্যাংক ও আর্থিক খাতের উত্থান সত্ত্বেও বাজার নেতিবাচক অবস্থানে চলে যায়। লেনদেন ও বেশিরভাগ শেয়ারদর কমেছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ও ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক নেতিবাচক অবস্থানে চলে যায়। তবে ব্যাংক খাত বৃদ্ধির কারণে ডিএস৩০ সূচক ইতিবাচক ছিল। তবে প্রধান দুই সূচকের সামান্য পতন হয়েছে। গতকাল ব্যাংক ও আর্থিক খাতে লেনদেনের পাশাপাশি শেয়ারের দর বৃদ্ধি পায়। বিমা খাতে লেনদেন কমলেও শেয়ার কেনার চাহিদা কিছুটা ছিল। এ তিন খাত ছাড়া বাকি খাতগুলোতে অধিকাংশ কোম্পানি দরপতনে ছিল।
ওষুধ ও রসায়ন লেনদেন হয় ১৬ শতাংশ। এ খাতে ৬২ শতাংশ কোম্পানি দরপতনে ছিল। সাড়ে ২৫ কোটি টাকা লেনদেন হয়ে শীর্ষে উঠে আসে জেএমআই সিরিঞ্জ। শেয়ারটির দর ২৮ টাকা বেড়ে দর বৃদ্ধিতে দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে আসে। এসিআই লিমিটেড দর বৃদ্ধিতে সপ্তম অবস্থানে ছিল। বীকন ফার্মার আট কোটি টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ২০ পয়সা। প্রকৌশল খাতে লেনদেন হয় ১৩ শতাংশ। এ খাতে ৮৭ শতাংশ কোম্পানির দর পতন হয়। কপারটেক ইন্ডাস্ট্রিজের ১৭ কোটি টাকা
লেনদেন হলেও চার টাকা ৩০ পয়সা দরপতন হয়। কোম্পানিটি দরপতনের শীর্ষ দশের তালিকায় অবস্থান করে। মুন্নু জুট স্টাফলার্সের পৌনে ১০ কোটি টাকা লেনদেন হয়। দরপতন হয় ৪০ টাকা ৩০ পয়সা। জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে লেনদেন হয় ১১ শতাংশ। এ খাতে ৭৪ শতাংশ কোম্পানি দরপতনে ছিল।
খুলনা পাওয়ারের সাড়ে ২০ কোটি টাকা লেনদেন হলেও ১০ পয়সা দরপতন হয়। ইউনাইটেড পাওয়ারের ১২ কোটি টাকা লেনদেন হয়। দরপতন হয় পাঁচ টাকা ২০ পয়সা। ব্যাংক খাতে লেনদেন হয় ১১ শতাংশ। এ খাতে ৮৩ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। রূপালী ব্যাংকের দর সাড়ে পাঁচ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধিতে তৃতীয় অবস্থানে, শাহজালাল ব্যাংক দশম অবস্থানে উঠে আসে। এছাড়া সিটি ব্যাংকের সাড়ে ৯ কোটি টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ৯০ পয়সা। প্রিমিয়ার ব্যাংকের সাড়ে ছয় কোটি টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ৩০ পয়সা। বস্ত্র খাতে লেনদেন হয় ৯ শতাংশ। এ খাতে ৬৭ শতাংশ কোম্পানির দরপতন হয়। দরপতনে শীর্ষ দশের তালিকায় উঠে আসে ভিএফএস থ্রেড ও আলহাজ্ব টেক্সটাইল। আর্থিক খাতে ৭৮ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। সোয়া পাঁচ শতাংশ বেড়ে মাইডাস ফাইন্যান্সিং দর বৃদ্ধিতে চতুর্থ ও বিডি ফাইন্যান্স সাড়ে চার শতাংশ বেড়ে নবম স্থানে উঠে আসে। বিমা খাতে ৪৬ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। ঢাকা ইন্স্যুরেন্স ও প্রগতি ইন্স্যুরেন্স দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশে উঠে আসে। এছাড়া আইসিবি এএমসিএল সেকেন্ড মিউচুয়াল ফান্ড দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে। প্রাইম ব্যাংক ফার্স্ট আইসিবি এএমসিএল মিউচুয়াল ফান্ড দর বৃদ্ধিতে পঞ্চম অবস্থানে ছিল। টেলিযোগাযোগ, পাট, কাগজ ও মুদ্রণ খাত শতভাগ নেতিবাচক ছিল। দরপতনের শীর্ষ ১০ কোম্পানির তালিকায় উঠে আসে পাট খাতের জুট স্পিনার্স ও নর্দান জুট।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..