প্রচ্ছদ প্রথম পাতা বাজার বিশ্লেষণ

ব্যাংক ও আর্থিক খাত ঘুরে দাঁড়ানোয় গতি ফিরল বাজারে

রুবাইয়াত রিক্তা: পুঁজিবাজারে দীর্ঘদিন ধরে ব্যাংক ও আর্থিক খাত মুখ থুবড়ে পড়ে ছিল। কেন্দ্রীয় ব্যাংক পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের জন্য ব্যাংকগুলোকে নগদ অর্থের জোগান দেওয়ার আশ্বাস দেওয়ায় একদিনেই বাজার চাঙা হয়ে উঠেছে। গতকাল ব্যাংক ও আর্থিক খাত উঠে দাঁড়ানোয় বাজার ঘুরে দাঁড়িয়েছে। একদিনে লেনদেন বেড়েছে ২০০ কোটি টাকার বেশি। সূচকের উত্থান ১০০ পয়েন্টের বেশি হলেও শেষ পর্যন্ত তা ৭৯ পয়েন্টে নেমে আসে। দর বেড়েছে ৮০ শতাংশ কোম্পানির। গতকাল ছোট-বড় সব খাতেই অধিকাংশ শেয়ারের দর বেড়েছে। ব্যাংক খাতের লেনদেন এক লাফে ১০ শতাংশ বেড়ে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে। গতকাল ব্যাংক ও আর্থিক খাতে একটি কোম্পানিও দরপতনে ছিল না।
লেনদেনের শীর্ষে থাকা ব্যাংক খাতে গতকাল লেনদেন হয় মোট লেনদেনের ১৫ শতাংশ বা ৬১ কোটি টাকা। এ খাতে একমাত্র প্রাইম ব্যাংকের দর অপরিবর্তিত ছিল। বাকি সবগুলোর দর বেড়েছে। প্রায় ৯ শতাংশ বেড়ে আইএফআইসি ব্যাংক দরবৃদ্ধিতে চতুর্থ অবস্থানে উঠে আসে। প্রিমিয়ার ব্যাংকের সোয়া ১০ কোটি টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ৭০ পয়সা। এছাড়া ব্র্যাক ব্যাংকের সাড়ে ৯ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে দুই টাকা ৮০ পয়সা। ওষুধ ও রসায়ন এবং প্রকৌশল খাতে লেনদেন হয় ১৪ শতাংশ করে। ওষুধ খাতে ৬২ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। রেনাটার সাড়ে ৯ কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে ২০ টাকা ৫০ পয়সা। স্কয়ার ফার্মার সোয়া ৯ কোটি টাকা লেনদেন হলেও এক টাকা ১০ পয়সা দরপতন হয়। প্রকৌশল খাতে ৭২ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। সাড়ে আট শতাংশ বেড়ে সুহƒদ ইন্ডাস্ট্রিজ দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে অবস্থান করে। ন্যাশনাল টিউবসের সাড়ে ১৫ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দরপতন হয় দুই টাকা ৬০ পয়সা। বিমা খাতে ১২ শতাংশ লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ৮৯ শতাংশ কোম্পানির। প্রভাতী ইন্স্যুরেন্স, সোনারবাংলা ইন্স্যুরেন্স ও তাকাফুল ইন্স্যুরেন্স দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে অবস্থান করে। এসব শেয়ারের দর সাড়ে সাত থেকে সাড়ে ৯ শতাংশ বেড়েছে। জ্বালানি খাতে লেনদেন হয় ১০ শতাংশ। এ খাতে ৮৪ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। সামিট পাওয়ারের প্রায় ১৫ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ৯০ পয়সা। কোম্পানিটি সবশেষ হিসাব বছরের জন্য ৩৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। ইউনাইটেড পাওয়ারের প্রায় ৯ কোটি টাকা লেনদেন হয়। দরপতন হয় সাত টাকা ৯০ পয়সা। আর্থিক খাতে একমাত্র ফারইস্ট ফাইন্যান্সের দর অপরিবর্তিত ছিল। সাড়ে ৯ শতাংশ বেড়ে ইন্টারন্যাশনাল লিজিং ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস দরবৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে। এছাড়া ৯ দশমিক ৪৫ শতাংশ বেড়ে ইউনিয়ন ক্যাপিটাল ও প্রায় আট শতাংশ বেড়ে মাইডাস ফাইন্যান্সিং দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে অবস্থান করে। বস্ত্র খাতে ৮২ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে উঠে আসে ভিএফএস থ্রেড ডায়িং ও এমএল ডায়িং। বাকি খাতগুলোও ভালো অবস্থানে ছিল।

 

সর্বশেষ..