দিনের খবর প্রচ্ছদ প্রথম পাতা বাজার বিশ্লেষণ

ব্যাংক খাতের দর বৃদ্ধি সূচকের পতন কমিয়েছে

রুবাইয়াত রিক্তা:পুঁজিবাজারে গতকাল সূচকের মিশ্র প্রবণতায় লেনদেন হয়েছে। প্রধান সূচক ও ডিএস৩০ সূচক নেতিবাচক অবস্থানে ছিল। সে সঙ্গে কমেছে লেনদেন। টানা পাঁচ দিন ধরে বাজার নেতিবাচক অবস্থানে রয়েছে। তবে গতকাল পতনের হার তুলনামূলক কম ছিল। লেনদেন বেড়ে শীর্ষে উঠে আসে ওষুধ ও রসায়ন খাত। তবে এ খাতে কেনার পাশাপাশি বিক্রির চাপও সমান ছিল। তবে গতকাল শেয়ার কেনার চাহিদা বেশি ছিল বিমা, তথ্য ও প্রযুক্তি এবং প্রকৌশল খাতে। তবে ব্যাংক খাতেও কেনার চাহিদা বেশি ছিল। যে কারণে সূচকের পতন তুলনামূলক কম হয়েছে।

মোট লেনদেনের ১৮ শতাংশ হয়ে শীর্ষে উঠে আসে ওষুধ ও রসায়ন খাত। এ খাতে দর বেড়েছে ৪০ শতাংশ কোম্পানির। এ খাতের ওরিয়ন ইনফিউশনের ১১ কোটি ৬৭ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে পাঁচ টাকা ৪০ পয়সা। কোম্পানিটি দর বৃদ্ধিতে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল। বীকন ফার্মার ১০ কোটি ৩২ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে এক টাকা ৬০ পয়সা। ইন্দোবাংলা ফার্মার সাত কোটি ৪২ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর কমেছে ২০ পয়সা। এছাড়া চার শতাংশ বেড়ে ওরিয়ন ফার্মা দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশে উঠে আসে। প্রকৌশল খাতে লেনদেন হয় ১৭ শতাংশ। এ খাতে ৫৩ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। এসএস স্টিলের আট কোটি ৯৭ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ২০ পয়সা। ওইম্যাক্স ইলেকট্রোডের আট কোটি ৯৭ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে এক টাকা ৫০ পয়সা। কোম্পানিটি দর বৃদ্ধিতে ষষ্ঠ অবস্থানে উঠে আসে। কপারটেকের ছয় কোটি ২৩ লাখ টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে ৫০ পয়সা। বস্ত্র খাতে লেনদেন হয় ১৫ শতাংশ। এ খাতে মাত্র ২৬ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। এছাড়া সিমেন্ট খাতের লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশের প্রায় ২০ কোটি টাকা লেনদেন হয়ে শীর্ষে উঠে আসে। দর বেড়েছে দুই টাকা ৬০ পয়সা। বিবিধ খাতের এসকে ট্রিমসের ১৫ কোটি ২২ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে পাঁচ টাকা। বিমা খাতে ৫৯ শতাংশ কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে। পাঁচ দশমিক ৩০ শতাংশ বেড়ে সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্স দর বৃদ্ধিতে পঞ্চম অবস্থানে ছিল এবং সাড়ে চার শতাংশ বেড়ে বিজিআইসি অষ্টম অবস্থানে উঠে আসে। তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে ৮০ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। প্রায় পাঁচ শতাংশ বেড়ে জেনেক্স ইনফোসিস দর বৃদ্ধিতে পঞ্চম অবস্থানে ছিল। এডিএন টেলিকমের ৯ কোটি ৮০ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে এক টাকা ৮০ পয়সা। ব্যাংক খাতে বেড়েছে ৪৭ শতাংশ কোম্পানির দর। যে কারণে সূচকের পতন অন্যান্য দিনের তুলনায় কম হয়েছে। জ্বালানি খাতের ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিংয়ের দর সোয়া চার শতাংশ বেড়েছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..