পত্রিকা

ব্যাংক খাতে আধিপত্য বাড়ছে এস আলম গ্রুপের  

 

সাইফুল আলম, চট্টগ্রাম: একসময় ট্রেডিং ব্যবসায়ই ছিল আধিপত্য। তবে গত কয়েক বছরে এর পরিবর্তে ব্যাংকিং ব্যবসায় মনোযোগী হচ্ছে দেশের শীর্ষস্থানীয় এস আলম গ্রুপ। একের পর এক আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বড় শিল্পপ্রতিষ্ঠানের শেয়ার কিনে আলোচনার কেন্দ্রে চলে এসেছে গ্রুপটি। ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, ইউনিয়ন ব্যাংক, এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক, আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক, বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকের পর এবার ইসলামী ব্যাংকের মালিকানায় অংশীদার হয়েছেন চট্টগ্রামভিত্তিক এস আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান সাইফুল আলম মাসুদ।

উল্লেখ্য, ইসলামী ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক (আইডিবি) কর্তৃক ইসলামী ব্যাংকের শেয়ার বিক্রির ঘোষণা দেওয়ার পরপরই দেশের ব্যাংকটির বর্তমান করপোরেট ডিরেক্টর এক্সেল ডায়িং অ্যান্ড প্রিন্টিং লিমিটেড ব্যাংকটির শেয়ার কেনার ঘোষণা দিয়েছে। নিজের অবস্থান আরও পোক্ত করার জন্য আগামী ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে তিন কোটি ২০ লাখ শেয়ার কেনার ঘোষণা দিয়েছে এস আলম গ্রুপের এ প্রতিষ্ঠানটি। এছাড়া ইসলামী ব্যাংকের বর্তমান চেয়ারম্যান আরাস্তু খান হচ্ছেন আরমাডা স্পিনিং মিলসের প্রতিনিধি। আর এ কোম্পানিটিও এস আলম গ্রুপের একটি প্রতিষ্ঠান।

গ্রুপটির সূত্রমতে, চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জের বৃহৎ ভোগ্যপণ্যের ব্যবসায়ী সাইফুল আলম মাসুদ প্রায় ৩০ বছর আগে দেশের বৃহত্তম পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জে পণ্য বেচাকেনা দিয়ে ব্যবসা শুরু করেন। সময়ের সঙ্গে ব্যবসায়ের পরিসর বাড়তে থাকে। তারপর একে একে পরিবহন, হোটেল, ঢেউটিন, সয়াবিন তেল, সিমেন্ট, চিনি, সিআর কয়েলসহ বেশ কয়েকটি শিল্প-কারখানা গড়ার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠা পায় এস আলম গ্রুপ। এস আলম গ্রুপ কয়েক বছরে আগেও তেল, গম, চিনি আমদানিতে শীর্ষে অবস্থানে থাকলেও বর্তমানে ভোগ্যপণ্যের ব্যবসা থেকে সরে এসে জ্বালানি, সিমেন্ট, ইস্পাত, ঢেউটিন, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতে তাদের ব্যবসা সম্প্রসারণ করছে।

এছাড়া ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস লিমিটেড (আইএলএফএসএল) এবং রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের মধ্যেই এস আলম গ্রুপের বিনিয়োগ রয়েছে। আর্থিক খাতে বিদ্যমান বিনিয়োগ বাড়ানোর লক্ষ্যে সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের শেয়ার ক্রয় করছে এস আলম গ্রুপের কিছু প্রতিষ্ঠান। তাছাড়া আরেক আর্থিক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফাইন্যান্স কোম্পানি লিমিটেডের (বিআইএফসি) শেয়ার ক্রয় করার বিষয়েও এস আলম গ্রুপের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা চলছে বলে জানা যায়। এসব ব্যাংক ছাড়াও তিনি নর্দার্ন ইন্স্যুরেন্সসহ অসংখ্য বেসরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠানে তার মালিকানা রয়েছে।

দেশের বৃহত্তম ব্যবসায়ী গ্রুপ এস আলমের মালিকানায় বেসরকারি খাতের সবচেয়ে বড় ইসলামী ব্যাংকের ১৪ শতাংশের বেশি শেয়ার। ইসলামী ব্যাংক ছাড়াও গ্রুপটির হাতে রয়েছে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, ইউনিয়ন ব্যাংক ও কমার্স ব্যাংকের বড় অংশের শেয়ার। এছাড়া আরও সাতটি আর্থিক প্রতিষ্ঠানে ব্যাংকের শেয়ার আছে এস আলম গ্রুপের হাতে। এর মধ্যে বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকের প্রায় ৪০ শতাংশ শেয়ার কিনে নিয়েছে চট্টগ্রামভিত্তিক এস আলম গ্রুপ। এরই মধ্যে ব্যাংকটির চার পরিচালক পদেও পরিবর্তন এসেছে। বাংলাদেশ ব্যাংক ও কমার্স ব্যাংক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

এছাড়া পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংক খাতের কোম্পানি সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের (এসআইবিএল) পরিচালনা পর্ষদে আসতে আগ্রহী দেশের অন্যতম বৃহৎ শিল্পগোষ্ঠী এস আলম গ্রুপ। এর মধ্যে এস আলম গ্রুপের কিছু প্রতিষ্ঠান সম্মিলিতভাবে এসআইবিএলের তিন শতাংশ শেয়ার ক্রয় করেছে বলে জানিয়েছে কোম্পানি; যা সম্প্রতি ডিএসইর কাছে পাঠানো ব্যাংকটির শেয়ার ধারণসংক্রান্ত এক প্রতিবেদনে প্রকাশিত হয়।

এ সম্পর্কে সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের নাম প্রকাশে অনচ্ছিুক একজন পরিচালক জানান, এসআইবিএলের পর্ষদে স্থান পেতে অনেকেই আগ্রহী। ইতোমধ্যে চট্টগ্রামের বৃহৎ ব্যবসায়ী গ্রুপ এস আলম তিন শতাংশ এবং কেডিএস গ্রুপ পাঁচ শতাংশ শেয়ার ক্রয় করেছে। তবে বিদ্যমান পর্ষদ সদস্যদের পদ শূন্য না থাকার কারণে তাদের পক্ষে এখনই পর্ষদে স্থান পাওয়া সম্ভব হচ্ছে না। তাছাড়া এজন্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা ও এসআইবিএলের পর্ষদের অনুমোদনের প্রয়োজন হবে। তাই চাইলেই তাদের পক্ষে পর্ষদে জায়গা করে নেওয়া সম্ভব হবে না।

এদিকে ইসলামী ব্যাংকের এস আলম গ্রুপ প্লাটিনাম এনডেভার্স, প্যারাডাইস ইন্টারন্যাশনাল, ব্লু ইন্টারন্যাশনাল, এবিসি ভেঞ্চার, গ্র্যান্ড বিজনেস, এক্সেল ডায়িং অ্যান্ড প্রিন্টিং, হযরত শাহজালাল (র.) ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিটির নামে প্রায় ৭০০ কোটি টাকার শেয়ার কেনে; যা ব্যাংকের মোট শেয়ারের ১৪ দশমিক শূন্য ছয় শতাংশ। বাংলাদেশ ব্যাংক ও স্টক এক্সচেঞ্জ সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

এস আলম গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান আবদুস সামাদ লাবু শেয়ার বিজকে বলেন, ‘আমরা এখন ট্রেডিং ব্যবসায়ের চেয়ে ব্যাংক ব্যবসায় বেশি মনোযোগী। ফলে বিভিন্ন ব্যাংকে আমাদের অংশগ্রহণ বাড়ছে। আগামীতে বিভিন্ন ব্যাংকে আমাদের অংশগ্রহণ আরও বৃদ্ধি পাবে। এজন্য শেয়ার কেনা হচ্ছে।

 

 

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..