প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিখোঁজ শিশুর বস্তাবন্দি গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার

প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া : নিখোঁজের তিন ঘন্টা পর পাশের বাড়ির টিউবওয়েলের কাছে মিললো পাঁচ বছরের শিশু আবু বকর সিদ্দিকের বস্তাবন্দী মরদেহ। ঘটনার সাথে জড়িতের দায়ে প্রতিবেশী যুবক সাব্বিরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের এই ঘটনায় নয়জনের বিরুদ্ধে দায়ের হয়েছে হত্যা মামলা। নিহত আবু বকর (০৫) জেলা শহরের কান্দিপাড়া মহল্লার হাসান মিয়ার ছেলে।

নিহতের পরিবার, স্থানীয় এএলাকাবাসী এবং পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ২৫ নভেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যে থেকে কান্দিপাড়া মহল্লার হাসান মিয়ার শিশুপুত্র আবু বকরকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না। খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে প্রায় কিন ঘন্টা পর বাড়ির লোকজন পার্শ্ববর্তী একটি বাড়ির টিউবওয়লের পাশে শিশু আবু বকরকে বস্তবন্দী অবস্থায় দেখতে পায়। রক্তাক্ত অবস্থায় শিশু আবু বকরকে উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। প্রতিবেশী সাব্বিরের ঘরে রক্তের দাগ পাওয়ায় তাকে সন্দেহজনকভাবে আটক করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের পাশাপাশি ঘটনার গভীর তদন্ত চলছে। দ্রুত রহস্য উদঘাটন করে ঘটনার সাথে যারাই জড়িত রয়েছে তাদেরকেও আইনের আওতায় আনা হবে বলে পু্লিশ নিশ্চিত করেন। এদিকে নারকীয় এই ঘটনায় নিহতের পিতা হাসান মিয়া বাদী হয়ে নয়জনের বিরুদ্ধে সদর মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। এদিকে পুলিশের একটি সূত্র জানায়, আটককৃত সাব্বির প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃত সাব্বির নারকীয় এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে স্বীকার করেছে। আরো তথ্য উপাত্ত সংগ্রহের জন্য তাকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোজাম্মেল হোসেন রেজা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘প্রতিবেশী সাব্বিরের ঘরে রক্তের দাগ পাওয়ায় তাকে সন্দেহজনকভাবে আটক করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের পাশাপাশি ঘটনাটির গভীর তদন্ত চলছে। দ্রুত রহস্য উদঘাটন করে ঘটনার সাথে যারাই জড়িত রয়েছে তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে।’