দিনের খবর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুই ট্রেনের মধ্যে সংঘর্ষ, নিহত ১৬

শেয়ার বিজ ডেস্ক: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলায় দুটি ট্রেনের মধ্যে সংঘর্ষে ১৬ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন শতাধিক মানুষ । আজ মঙ্গলবার ভোররাত পৌনে ৩টার দিকে উপজেলার ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের মন্দভাগ রেলওয়ে স্টেশনের ক্রসিংয়ে আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেস ও তুর্ণা নীশিতা ট্রেনের মধ্যে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে।

হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া ফায়ার সর্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক তানহারুল। এ দুর্ঘটনার পর থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম এবং চট্টগ্রাম-সিলেটের সঙ্গে রেল যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

নিহতদের মধ্যে কয়েকজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন- চাঁদপুরের হাজিগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম রাজারগাঁও গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে মুজিবুর রহমান (৫০), তাঁর স্ত্রী কুলসুম বেগম (৩৫), হবিগঞ্জ সদর উপজেলার বুল্লা গ্রামের ইয়াসিন, একই উপজেলার আনোয়ারপুর গ্রামের মো. হাসান মিয়ার ছেলে মো. ইউসুফ, একই জেলার চুনারুঘাট উপজেলার পীরেরগাঁও গ্রামের সুজন আহমেদ, মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার গাজীপুর গ্রামের জাহিদা খাতুন (৪৫), হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার আইয়ুব হোসেনের ছেলে আল-আমিন, একই উপজেলার আল-আমিনের দুই বছরের শিশুকন্যা শাহানা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন বলেন, নিহতদের মধ্যে নয়জন ঘটনাস্থলে, সদর হাসপাতালে দুইজন, কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তিনজন এবং কুমিল্লা সদর হাসপাতালে একজন মারা যান।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনটি তুর্ণা নিশীথাকে সাইড দিচ্ছিল। তখন উদয়ন ট্রেনের অর্ধেক বগি অন্য লাইনে ঢোকার পর বাকি বগিগুলোতে তুর্ণা নিশীথা ধাক্কা দেয়। এতে দুটি বগি দুমড়ে-মুচড়ে যায়।

আখাউড়া রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যমল কান্তি দাস জানান, দুইটি ট্রেনের কয়েকটি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়া বগির নিচে আরও মরদেহ থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..