সারা বাংলা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পুলিশে বদলির হিড়িক

এইচএম সিরাজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া: হেফাজতকাণ্ডে ধুঁকছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া। এর ধাক্কা লেগেছে জেলা পুলিশেও। বদলির আদেশে অস্থির জেলার পুলিশ বিভাগ, যেন বদলির হিড়িক লেগেছে। সাব-ইন্সপেক্টর থেকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ কেউই বাদ যাচ্ছেন না। সম্প্রতি প্রায় দুই ডজন পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়েছে, তাও সাধারণ বদলি নয়, একেবারে রেঞ্জ বদল। এবার বদলি হলেন জেলার দুই থানার ওসি।

সর্বশেষ জেলার বিজয়নগর থানার ওসি মো. আতিকুর রহমানকে রংপুর ও নাসিরনগর থানার ওসি এটিএম আরিচুল হককে বরিশাল রেঞ্জে সংযুক্ত করা হয়েছে। পুলিশ সদর দপ্তর থেকে এ দুই থানার ওসির বদলির বিষয়ে আদেশ জারি করা হয় বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র নিশ্চিত করেছে।

এ নিয়ে জেলা পুলিশের একজন অতিরক্ত পুলিশ সুপার, একজন সহকারী পুলিশ সুপার, পাঁচজন ওসি, দুজন ইন্সপেক্টর ও ১৩ জন সাব-ইন্সপেক্টরকে বদলি করা হল।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদরে হেফাজতের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর। ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশন, পৌরসভা, জেলা পরিষদ, ভূমি অফিস, প্রেস ক্লাব, হাইওয়ে থানাসহ প্রায় অর্ধশত সরকারি, বেসরকারি স্থাপনায় হামলা-ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগে ঘটানো হয় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি। অপরদিকে প্রাণহানিও হয় বেশ কয়েকজনের।

এসব ঘটনায় পুলিশ নিষ্ক্রিয় ভূমিকা রাখে বলে সরকারি দল থেকেও অভিযোগ ওঠে। পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এলে পুলিশের নির্লিপ্ততার বিষয়টি তুলে ধরেন বিভিন্ন মহল। কয়েক দিন পর পুলিশ সদর দপ্তর ধেকে একের পর এক বদলির আদেশ আসতে থাকে জেলা পুলিশে। ক্রমে তালিকাটি হতে থাকে দীর্ঘ। সর্বশেষ তালিকায় ওঠলো জেলার বিজয়নগর এবং নাসিরনগর থানার ওসির নাম।

এ পর্যন্ত জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) রইস উদ্দিন, বিশেষ শাখার সহকারী পুলিশ সুপার আলাউদ্দিন চৌধুরী, সদর মডেল থানার ওসি মো. আবদুর রহিম, খাঁটিহাতা হাইওয়ে থানার ওসি গাজী মো. সাখাওয়াত হোসেন, সরাইল থানার ওসি নাজমুল আহমেদ, সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মুহাম্মদ শাহজাহান, পরিদর্শক (অপারেশন) ইশতিয়াক আহমেদ, জেলা পুলিশের কর্মরত ১৩ জন উপপরিদর্শক (এসআই) এবং বিজয়নগর থানার ওসি মো. আতিকুর রহমান ও নাসিরনগর থানার ওসি এটিএম আরিচুল হককে বদলি করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোজাম্মেল হোসেন রেজা এ বিষয়ের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘এই বদলি হলো পুলিশের নিয়মিত ব্যাপার। হেফাজতের ঘটনার জন্য কেউ বদলি হয়নি।’

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..