সারা বাংলা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর নির্বাচন: ১৬ ভোটকেন্দ্র দখলের আশঙ্কা

প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া: ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভা নির্বাচনে ১৬ ভোটকেন্দ্র দখল হওয়ার আশঙ্কা করছে জেলা আওয়ামী লীগ। দল থেকে অব্যাহতি পাওয়া স্বতন্ত্র মেয়রপ্রার্থী মাহমুদুল হক ভূঁইয়া ও বিএনপির মেয়রপ্রার্থী জহিরুল হক এ দখলে নেতৃত্ব দেবে বলে জানিয়েছে আওয়ামী লীগ।

গতকাল শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে দলীয় প্রার্থী নায়ার কবিরের পক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার এ আশঙ্কার কথা বলেন। পাশাপাশি তিন কেন্দ্রের ভোটারদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা। এর আগে শুক্রবার ঝুঁকিপূর্ণ এসব কেন্দ্রের বিষয়ে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দেন তিনি।

মামুন সরকার বলেন, পৌর এলাকার ভাদুঘর দারুস সুন্নাহ কামিল মাদরাসা পূর্ব ও উত্তর ভবন, ভাদুঘর দক্ষিণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুরোনো ও নতুন ভবন, ভাদুঘর পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পূর্ব ও পশ্চিম ভবনসহ ভাদুঘর ঋষিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র দখল করে সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসীরা স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহমুদুল হক ভূঁইয়ার মোবাইল ফোন প্রতীকে জোর করে এককভাবে ভোট নেয়ার চেষ্টা করবে।

এছাড়া বিএনপির প্রার্থী জহিরুল হক তার নিজ গ্রাম শিমরাইলকান্দির তিন কেন্দ্র শিমরাইলকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শিমরাইলকান্দি দক্ষিণ বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও তোফায়েল আজম কিন্ডারগার্টেন সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসীরা দখল করে জোর করে ধানের শীষ প্রতীকে ভোট নেয়ার চেষ্টা করবে। দুই প্রার্থী পৌর এলাকার মোট ৪৮ কেন্দ্রের ১৬টি দখল করাসহ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে ভোটরদের কেন্দ্রে আসতে নিরুৎসাহিত করবে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়েছে। এ অবস্থায় সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন এবং ভোটরদের নিরাপত্তা দিতে ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোয় একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ পর্যাপ্ত বিজিবি, র‌্যাব ও পুলিশ ফোর্স মোতায়েনের জন্য প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ জিল্লুর রহমান এ প্রসঙ্গে জানান, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন।

আজ রোববার পঞ্চম ধাপে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ব্রাক্ষণবাড়িয়া পৌরসভা নির্বাচন। ১২ ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত পৌরসভায় মোট ভোটার এক লাখ ২০ হাজার ৫০৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৫৯ হাজার ৫৬২ জন, নারী ভোটার ৬০ হাজার ৯৪২। নির্বাচনে পুলিশের পাশাপাশি ১২ প্লাটুন বিজিবি, ছয় প্লাটন র‌্যাব ও স্ট্রাইকিং ফোর্সসহ আনসার বাহিনী দায়িত্ব পালন করবে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..