ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গাছে মিললো অটোচালকের ঝুলন্ত মরদেহ, পরিবারের দাবী হত্যা

প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া: ভোরবেলা কে একজন মোবাইল ফোনে ফোন দিয়ে যেতে বলেন।এরপরই নিজের অটোরিকশা নিয়ে ভাড়া বাসা থেকে বের হন মোফাসসেল। সকাল হতেই পরিবারের লোকজন জানতে পারেন তিতাসপাড়ের শ্মশানঘাট এলাকায় গাছের ডালে ঝুলে আছে অটোচালক মোফাসসেলের মরদেহ। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের। পরিবারের দাবী, তাকে ডেকে নিয়ে মেরে গাছে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

শনিবার (৪ ডিসেম্বর) সকালে জেলা শহরের পূর্বমেড্ডা শ্মশানঘাট এলাকার তিতাস নদীর পাড়ের গাছের ডাল থেকে পুলিশ ঝুলন্ত মরদেহটি উদ্ধার করে। নিহত মোফাসসেল বাবু (২৫) জেলার সরাইল উপজেলার শাহবাজপুর গ্রামের মৃত সিরাজ মিয়ার পুত্র। পরিবার নিয়ে জেলা শহরের মেড্ডা এলাকায় বসবাস করে অটোরিকশা চালাতেন।

নিহতের পরিবার, স্থানীয় এলাকাবাসী এবং পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার ভোরে ফজর নামাজের সময় মোফাসেসল বাবুকে কোনো এক ব্যাক্তি মোবাইলে ফোন করে। পরে ঘুম থেকে ওঠে অটোরিকশা নিয়ে বের হয় মোফাসসেল বাবু। তার ঘন্টা-খানেক পরেই মেড্ডার শ্মশানঘাট এলাকার তিতাস নদীর পাড়ে একটি কড়ই গাছের ডালে তার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায় স্থানীয়রা। পরে মোফাসসেলের মৃত্যুর খবর জানানো হয় পরিবারকে। স্থানীয় সূত্রে ঘটনার খবর পেয়ে সদর মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গাছের ডালে ঝুলন্ত অবস্থায় থাকা মোফাসসেলের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। নিহতের পরিবারের দাবী, তাকে ডেকে নিয়ে মেরে এখানে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পরিদর্শক (ওসি) মোহাম্মদ এমরানুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর মৃত্যুর কারন জানা যাবে।’

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন   ❑ পড়েছেন  ৯১৩৮  জন  

সর্বশেষ..