বিশ্ব সংবাদ

ভারতীয় চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করল নেপাল

শেয়ার বিজ ডেস্ক : ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলির বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন ও অবমাননাকর প্রচারণা চালানো হচ্ছে। দেশটির সরকারি মুখপাত্র যুবরাজ খাতিওয়াড়া এ অভিযোগ তোলেন। এর কয়েক ঘণ্টা পর দূরদর্শন টিভি ছাড়া ভারতীয় সব চ্যানেলের সম্প্রচার অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দিয়েছে নেপালের কেবল অপারেটররা। খবর: কাঠমান্ডু পোস্ট।

গত বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে যুবরাজ খাতিওয়াড়া বলেন, ‘আমাদের দেশের ভাবমূর্তি, জাতীয়তা ও সার্বভৌমত্বকে ক্ষতিগ্রস্ত করার জন্য দায়ী ভারতীয় গণমাধ্যমের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সম্পূর্ণ অধিকার সরকারের রয়েছে।’ তিনি এ ধরনের সংবাদ প্রচার বন্ধ রাখতে ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতি আহ্বানও জানান।

এদিকে নেপালের শাসক দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য রঞ্জন ভট্টরাই একটি টুইট বার্তায় বলেন, ‘নয়া মানচিত্র প্রকাশের পর ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে যে খবর আসছে, তা অত্যন্ত নিন্দনীয়। আমরা এ মনগড়া এবং ভুয়া রিপোর্টকে পুরোপুরি  প্রত্যাখ্যান করছি। একই সঙ্গে আমাদের সার্বভৌমত্ব এবং জাতীয় স্বাধীনতার প্রশ্নে নেপালের সরকার এবং মানুষের ঐক্যবদ্ধ অবস্থানকে সম্মান জানানোর জন্য ওদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।’

এর আগে, নেপালের সাবেক উপ-প্রধানমন্ত্রী ও ক্ষমতাসীন নেপাল কমিউনিস্ট পার্টির (এনসিপি) মুখপাত্র নারায়ণ কাজী শ্রেষ্ঠা ভারতীয় টিভি চ্যানেলের সমালোচনা করে বলেছিলেন, ‘সহ্যের সীমা ছাড়িয়ে যাচ্ছে। এই ছাইপাঁশ বন্ধ হোক।’

এরপর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে ভারতীয় চ্যানেলগুলোর সম্প্র্রচার বন্ধ করে দেন কেব্ল অপারেটররা। এ প্রসঙ্গে নেপালে বিদেশি চ্যানেলগুলোর ডিস্ট্রিবিউটর মাল্টি-সিস্টেম অপারেটরের (এমএসও) চেয়ারম্যান দিনেশ সুবেদি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘দূরদর্শন ছাড়া আমরা ভারতীয় সব বেসরকারি নিউজ চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছি। তারা যেসব খবর সম্প্রচার করেছে, তা নেপালের জাতীয় অনুভূতিতে আঘাত হেনেছে। এ কারণে এগুলো আর চালানো হবে না।’ নেপালের কেব্ল অপারেটর মেগা ম্যাক্স টিভি নেটওয়ার্কের সহসভাপতি ধ্রুব শর্মা জানিয়েছেন, সরকারের নির্দেশে অনির্দিষ্টকালের জন্য নেপালে ভারতীয় চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ থাকবে।

নেপালের পার্লামেন্টের নিন্মকক্ষে দেশটির সংবিধানের দ্বিতীয় সংশোধনী ১৩ জুন সর্বসম্মতিক্রমে পাস হয়। এতে নতুন মানচিত্র গ্রহণ করা হয়েছে। যাতে বিতর্কিত লিমপিয়াধুরা-কালাপানি-লিপুলেখ অঞ্চল অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ভারত এ এলাকাগুলোকে নিজেদের ভূখণ্ড বলে দাবি করে আসছে। এ ঘটনায় উভয়দেশের মধ্যে কূটনৈতিক উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ পরিস্থিতির মধ্যেই নেপালে বন্ধ হলো ভারতীয় টেলিভিশন চ্যানেল।

মানচিত্র নিয়ে উত্তেজনার মধ্যেই নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি অভিযোগ করেছিলেন, তাকে ও তার সরকারকে উৎখাতের জন্য ভারতে বৈঠক হচ্ছে। এ বিষয়ে দিল্লি থেকে খবর আসছে।  ওলি বলেন, নেপালের ভূখণ্ড চিহ্নিত করায় খুশি হয়নি ভারত। আমাদের জাতীয়তাবাদ এত দুর্বল নয়। আমরা আমাদের মানচিত্র পরিবর্তন করেছি এবং এখন যদি দেশের প্রধানমন্ত্রীকে গদিচ্যুত করা হয় তাহলে নেপালের কাছে তা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য হবে না।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..