স্পোর্টস

ভারতের কথা শোনেনি আইসিসি

ক্রীড়া ডেস্ক: তারা যে বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ক্রিকেট বোর্ড এটা তো সবারই জানা। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) রাজস্বের ৭০ ভাগেরই জোগান দেয় ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)। এ জন্য বাড়তি সুবিধাও পেয়ে আসছে তারা। তবে এবার নড়েচড়ে বসেছেন আইসিসির কর্তাব্যক্তিরা। বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় শক্তি ভারতের সঙ্গে সরাসরিই দ্বন্দ্বে জড়িয়ে গেলেন তারা। বিসিসিআই’র আপত্তির পরও ভবিষ্যৎ সূচির পরবর্তী চক্রে টুর্নামেন্ট বাড়াচ্ছে বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা।

দুবাইয়ে গত পরশু আইসিসির সভায় অনুমোদন পায় আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট বাড়ানোর প্রস্তাব। আর এ চক্র চলবে ২০২৩ বিশ্বকাপের পর থেকে ২০৩১ সাল পর্যন্ত। এর মধ্যে ৮ বছরের এ চক্রে প্রতি বছরই একটি করে আইসিসি টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে। ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ দুটি, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চারটি অনুষ্ঠিত হবে। ৫০ ওভারের ফরম্যাটে হবে বাড়তি দুটি আসর।

একইসঙ্গে ব্যস্ততা বাড়বে নারী ক্রিকেটেরও। মেয়েদের ৮টি বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট, অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ে ছেলে ও মেয়েদের চারটি করে টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে।

আইসিসির এমন পরিকল্পনা নিয়ে আপত্তি জানিয়ে রেখেছিল ভারত। কারণ নতুন বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট হলে আয় করবে তাদের। সব দলেরই দ্বিপক্ষীয় সিরিজ কমে যাবে। দ্বিপক্ষীয় সিরিজগুলো থেকে ভারতের আয় অনেক অনেক বেশি। এ অবস্থায় আইসিসির রাজস্ব বাড়লেও আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে বিসিসিআই। এ কারণেই তারা ব্যাপারটা মানতে চাইছে না।

আইসিসির প্রধান নির্বাহীর কাছে পাঠানো বিসিসিআইয়ের প্রধান নির্বাহীর একটি ই-মেইলে প্রবল আপত্তির কথা জানিয়েছে ভারত।

অবশ্য বাংলাদেশ ছাড়াও অন্য বোর্ডের আইসিসির এ সিদ্ধান্তে আপত্তি কথার কথা শোনা যায়নি। শীর্ষ দল ছাড়া দ্বিপক্ষীয় সিরিজ খুব একটা লাভজনক নয়। আইসিসির টুর্নামেন্ট বাড়লে তাই আইসিসি থেকে রাজস্বও তারা বেশি পাবে। তবে ভারত, অস্ট্রেলিয়া আর ইংল্যান্ড এ ‘বিগ থ্রি’ বিতর্কের পর ফের মুখোমুখি হলো আইসিসি ও বিসিসিআই।

সর্বশেষ..