বিশ্ব সংবাদ

ভারতের কাছ থেকে খুব ভালো কিছু পাইনি: ট্রাম্প

শেয়ার বিজ ডেস্ক: ভারতের কাছ থেকে যুক্তরাষ্ট্র খুব ভালো কিছু পায়নি বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার বিকালে ওয়াশিংটনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এমন মন্তব্য করেন তিনি। আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি দুদিনের সফরে ভারতে যাওয়ার কথা রয়েছে ট্রাম্পের। ফলে এ সময় তার এমন মন্তব্য তাৎপর্যপূর্ণ বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে ওই মন্তব্যের মধ্য দিয়ে এখনই ভারতের সঙ্গে বড় ধরনের কোনো চুক্তিতে না যাওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। খবর: এনডিটিভি।

ট্রাম্প বলেন, তার প্রশাসন ভারতের সঙ্গে বড় ধরনের চুক্তিতে আগ্রহী। তবে আগামী নভেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে এটি সম্ভব হবে কি না, তা নিশ্চিত নয়। এনডিটিভি  বলছে, ট্রাম্পের ইঙ্গিত অনেকটাই স্পষ্ট। তার আসন্ন ভারত সফরে হয়তো শেষ পর্যন্ত ওয়াশিংটন-দিল্লি বাণিজ্যচুক্তি স্বাক্ষর হবে না। ট্রাম্প বলেছেন, ‘ভারতের সঙ্গে আমাদের একটি বাণিজ্যচুক্তি হতেই পারে। তবে আমি চাইছি এ গুরুত্বপূর্ণ চুক্তিটি এ মুহূর্তে নয়, বরং পরবর্তী সময়ের জন্য তুলে রাখতে।’

আগামী ২৪ ও ২৫ ফেব্রুয়ারি ট্রাম্পের ভারত সফর ঘিরে দুদেশের মধ্যে বড় ধরনের একটি বাণিজ্যচুক্তি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই জল্পনা চলে আসছিল। এ চুক্তি প্রসঙ্গে ট্রাম্প বলেন, ‘আমরা ভারতের সঙ্গে খুব বড় একটা বাণিজ্যচুক্তি করতে চলেছি। আমাদের এটি করতেই হবে। তবে নির্বাচনের আগে এটি করা সম্ভব হবে কি না, তা জানি না। এটি ঠিক যে, ভারতের সঙ্গে আমাদের অনেক বড় কোনো চুক্তি হবে।’

ভারতের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য আলোচনার মূল মধ্যস্থতাকারী হচ্ছেন ট্রাম্প প্রশাসনের বাণিজ্য প্রতিনিধি রবার্ট লাইথিজার। এরই মধ্যে গুঞ্জন উঠেছে, দিল্লিতে ট্রাম্পের সফরসঙ্গী হচ্ছেন না তিনি। তবে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে অবশ্য এখনও পর্যন্ত বিষয়টি পরিষ্কার করা হয়নি।

ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক নিয়ে দৃশ্যত নিজের অসন্তোষের কথা জানালেও দেশটিতে আসন্ন সফর নিয়ে যথেষ্ট আশাবাদী ট্রাম্প। তিনি বলেন, নরেন্দ্র মোদি জানিয়েছেন, আমাকে স্বাগত জানাতে বিমানবন্দর থেকে স্টেডিয়াম পর্যন্ত ৭০ লাখ মানুষ হাজির হবে।

আগামী ২৪ ও ২৫ ফেব্রুয়ারি দুদিনের এ রাষ্ট্রীয় সফরে ট্রাম্প ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লি ও গুজরাটের আহমেদাবাদ নগর সফর করবেন। দুদেশের কৌশলগত সম্পর্ক ও পারস্পরিক সহযোগিতার বন্ধন আরও মজবুত করাই সফরের মূল লক্ষ্য। মার্কিন ফার্স্টলেডি মেলেনিয়াও এ সফরে থাকছেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..