বিশ্ব বাণিজ্য

ভারতের পুঁজিবাজারে বড় উত্থান

করপোরেট কর কমানোর প্রভাব

শেয়ার বিজ ডেস্ক: করপোরেট কর কমানোর পর ভারতের পুঁজিবাজার ফের ঊর্ধ্বমুখী ধারায় ফিরেছে। গত শুক্রবারের পর চলতি সপ্তাহের প্রথম দিনেই শেয়ার সূচক সেনসেক্সে বড় উত্থান হয়েছে। গতকাল সোমবার বাজার শুরুর পরপরই এ সূচক বেড়েছে এক হাজার ৪২৬ পয়েন্ট। খবর: আনন্দবাজার ও এনডিটিভি।
গতকাল লেনদেনের একপর্যায়ে সেনসেক্স সূচক ওঠে ৩৯ হাজার ৪৪১ অঙ্কে। সেনসেক্সের মতোই নিফটিও বেড়েছে ত্বরিত গতিতে। ১১ হাজারের গণ্ডি ছাড়িয়ে তা একসময় পৌঁছে যায় ১১ হাজার ৩৯৪ অঙ্কে। এদিন শেয়ারবাজার খুলতেই সেনসেক্স ঊর্ধ্বমুখী হতে থাকে। দুপুরের মধ্যে মূলত ব্যাংকিং, অটোমোবাইল ও এফএমসিজি প্রতিষ্ঠানগুলোর শেয়ারগুলোর এ গতি ত্বরান্বিত হয়। নিফ?টি ব্যাংক সূচক একসময় ছয় শতাংশ বেড়ে ৩০ হাজারের গণ্ডি স্পর্শ করে। ব্যাংকগুলোর মধ্যে সবচেয়ে লাভবান হয়েছে ইন্ডাসইন্ড, আইসিআইসিআই ব্যাংক, অ্যাক্সিস ব্যাংক, আরবিএল ব্যাংক এবং এইচডিএফসি ব্যাংক। এক লাফে পাঁচ শতাংশ থেকে সাত শতাংশ বেড়ে যায় তাদের শেয়ার। এফএমসিজি প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে আইটিসি এবং ব্রিটানিয়ার শেয়ার বাড়ে আট শতাংশ করে। অন্যদিকে হিন্দুস্তান ইউনিলিভার লিমিটেডের শেয়ার বেড়ে যায় ছয় শতাংশ।
বিশেষজ্ঞদের মতে, করপোরেট কর কমানোর পর ওই প্রতিষ্ঠানগুলোর মুনাফা বৃদ্ধির সম্ভাবনা বাড়ায় বিনিয়োগকারীরা আকৃষ্ট হয়।
গত শুক্রবার গোয়ায় এক সংবাদ সম্মেলনে দেশটির অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন স্থানীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য করপোরেট করের হার কমানোর ঘোষণা করেন। জানান, দেশীয় প্রতিষ্ঠানগুলো এবং নতুন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর করপোরেট করের হার কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। নতুন কার্যকর করা করের হার ৩০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২৫ দশমিক দুই শতাংশে নামিয়ে আনা হবে। এতে সব সারচার্জ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। তবে যেসব প্রতিষ্ঠান বর্তমানে ধুঁকছে, তাদের ক্ষেত্রেই এটি প্রযোজ্য হবে বলে জানান তিনি। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর এ ঘোষণার পরপরই দেশটির শেয়ারবাজার গতকাল ঊর্ধ্বমুখী হয়। ওই দিন সেনসেক্স ৯০০ পয়েন্ট বেড়ে যায় এবং নিফটির সূচকও ১০ হাজার ৯০০-এর ওপরে উঠে যায়।
কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনের করপোরেট কর কমানোর ঘোষণাকে ঐতিহাসিক বলে অভিহিত করছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এ পদক্ষেপ ১৩০ কোটি ভারতীয়ের হƒদয় জয় করবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। এ ঘোষণা মেক ইন ইন্ডিয়া প্রকল্পকে দুর্দান্ত উদ্দীপনা দেবে বলেও মনে করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী এক টুইট বার্তায় বলেন, এটি কোটি কোটি ভারতীয়র জন্য আরও বেশি কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে। করপোরেট ট্যাক্স কমানোর পদক্ষেপটি ঐতিহাসিক। মেক ইন ইন্ডিয়ার পক্ষে দুর্দান্ত উদ্দীপনা, বিশ্বের বেসরকারি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করা, আমাদের বেসরকারি খাতের প্রতিযোগিতামূলক দক্ষতা বাড়ানো, আরও বেশি কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা এবং এর ফলে ১৩০ কোটি ভারতীয়র জয়ের জন্য এটি উদ্দীপনামূলক।
প্রবৃদ্ধি ও বিনিয়োগের প্রচারের জন্য ২০১৯-২০ অর্থবছর থেকে আয়কর আইনে একটি নতুন বিধান অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। কিন্তু চাহিদা বৃদ্ধি ও বিনিয়োগ বাড়াতে কেন্দ্রীয় সরকার ঘোষিত একাধিক পদক্ষেপের পরই জুনের শেষ প্রান্তিকের মধ্যে দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি পাঁচ শতাংশের নিচে চলে যায়। সবচেয়ে বড় প্রভাব পড়ে দেশের গাড়িশিল্পে। মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপিতে সবচেয়ে বড় অবদানকারী গাড়িশিল্পে গ্রাহকদের চাহিদা ক্রমেই হ্রাস পাওয়ার কারণে বিরাট মন্দা দেখা যায়। অনেক গাড়িনির্মাতাই সাময়িকভাবে নতুন গাড়ি উৎপাদন বন্ধ করে দিয়েছে এবং কাজ হারিয়েছেন গাড়িশিল্পের সঙ্গে যুক্ত বহু মানুষ।

সর্বশেষ..