কোম্পানি সংবাদ পুঁজিবাজার

ভারতের বাজাজ অটোর সঙ্গে চুক্তি করবে রানার অটোমোবাইলস

নিজস্ব প্রতিবেদক: ভারতের মুম্বাই পুনে রোডে অবস্থিত কোম্পানি বাজাজ অটো লিমিটেডের সঙ্গে একটি চুক্তি সই করতে যাচ্ছে রানার অটোমোবাইলস লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, বাজাজ অটো লিমিটেডের সঙ্গে চুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশের বাজারে কেটিএম ব্র্যান্ডের মোটরসাইকেল সরবরাহ করবে রানার অটোমোবাইলস। পুরোপুরি যুক্ত অবস্থায় (কমপ্লিটলি বিল্ড আপ বা সিবিইউ), বিযুক্ত (সেমি নক ডাউন বা এসকেডি) অবস্থায় এবং সম্পূর্ণ খোলা অবস্থায় (কমপ্লিট নক ডাউন বা সিকেডি) যন্ত্রাংশ এনে মোটরসাইকেল এবং যন্ত্রাংশ বাজারজাত করবে। এটি দেশের মোটরসাইকেল বাজারে রানারের অবস্থানকে আরও শক্তিশালী করবে।

চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ, ২০২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রানার অটোমোবাইলস লিমিটেড। আর তৃতীয় প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ৫৫ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ৭৭ পয়সা। এছাড়া ২০২০ সালের ৩১ মার্চ তারিখে শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য দাঁড়িয়েছে ৬৪ টাকা ১৫ পয়সা, যা ২০১৯ সালের ৩০ জুনে ছিল ৬৫ টাকা ৪৯ পয়সা। আর প্রথম তিন প্রান্তিকে (জুলাই ২০১৯-মার্চ ২০২০) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ দাঁড়িয়েছে ছয় টাকা ৫৩ পয়সা (লোকসান), আগের বছর একই সময়ে ছিল ৫৪ পয়সা।

ডিএসইতে গতকাল কোম্পানিটির শেয়ারদর দুই দশমিক ৮৯ শতাংশ বা এক টাকা ৪০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ ৪৯ টাকা ৮০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দরও ছিল ৮৯ টাকা ৮০ পয়সা। দিনজুড়ে চার লাখ ৩৯ হাজার ৪৩৭টি শেয়ার মোট ৬৬৭ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর দুই কোটি ১৮ লাখ ৭৯ হাজার টাকা। দিনভর শেয়ারদর ৪৮ টাকা থেকে ৫০ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ৩৯ টাকা থেকে ৯৯ টাকা ৯০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে।

৩০ জুন ২০১৯ সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য কোম্পানিটি ১০ শতাংশ নগদ ও পাঁচ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। আলোচিত সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে পাঁচ টাকা শূন্য সাত পয়সা এবং ৩০ জুন তারিখে শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৬৫ টাকা ৪৯ পয়সা। আগের বছর একই সময় যা ছিল যথাক্রমে চার টাকা ৯০ পয়সা ও ৫৯ টাকা ৫৩ পয়সা।

সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদন ও বাজারদরের ভিত্তিতে শেয়ারের মূল্য-আয় অনুপাত ৯ দশমিক ৮২ এবং হালনাগাদ অনিরীক্ষিত ইপিএসের ভিত্তিতে ১৩ দশমিক ৬৩।

কোম্পানিটি ২০১৯ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। ২০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ১১৩ কোটি ৫৪ লাখ টাকা। কোম্পানিটির মোট ১১ কোটি ৩৫ লাখ ৩৯ হাজার ৯৩২ শেয়ার রয়েছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..