বিশ্ব বাণিজ্য

ভারতের রপ্তানি বন্ধের ঘোষণায় বিশ্বজুড়ে ওষুধ ঘাটতির শঙ্কা

শেয়ার বিজ ডেস্ক : প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের মহামারির শঙ্কায় ২৬টি ওষুধের উপাদান ও ওষুধ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণা করেছে ভারত। বিশ্বে ওষুধ ও ওষুধের উপাদানের অন্যতম সরবরাহকারী ভারত গত মঙ্গলবার এ ঘোষণা দিয়েছে। এতে ওষুধের ঘাটতি দেখা দেওয়ার শঙ্কা তৈরি হয়েছে। খবর: বিবিসি ও হিন্দুস্তান টাইমস।

রপ্তানির এ নিষেধাজ্ঞার মধ্যে রয়েছে প্যারাসিটামলও। ভারতের ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানিগুলো তাদের সক্রিয় ফার্মাসিউটিক্যাল উপাদানের (এপিআই) ৭০ শতাংশই আমদানি করে প্রতিবেশী চীন থেকে।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব এরই মধ্যে চীনা সরবরাহের ওপর নির্ভরশীল ব্যবসা ব্যাহত করেছে। শিল্পপ্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত কর্মকর্তারা বলছেন, মহামারি শুরু হলে ভারতীয় ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানিগুলো চীনা সরবরাহের ঘাটতির মুখোমুখি হতে পারে।

মঙ্গলবার ভারতের বৈদেশিক বাণিজ্যবিষয়ক দপ্তরের মহাপরিচালক ওষুধ ও ওষুধের উপাদানের রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপের ব্যাখ্যা না দিয়ে একটি বিবৃতি দিয়েছেন। এতে তিনি বলেছেন, কিছু সক্রিয় ফার্মাসিউটিক্যাল উপাদান এবং এসব উপাদান থেকে তৈরি করা ওষুধ তাৎক্ষণিকভাবে রপ্তানি নিষেধাজ্ঞার আওতায় আসবে। পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত এ নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে।

রপ্তানি নিষিদ্ধ ২৬টি ওষুধের উপাদান এবং ওষুধের যে তালিকা সরকার প্রকাশ করেছে, তা দেশটির মোট রপ্তানির প্রায় ১০ শতাংশ।

ভারতের ফার্মাসিউটিক্যালস এক্সপোর্ট প্রোমোশন কাউন্সিলের চেয়ারম্যান দিনেশ দুয়া বলেছেন, আগামী কয়েক মাস এসব ওষুধের উপাদানের সংকট দেখা দিতে পারে, যে কারণে অনাকাক্সিক্ষত এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। দেশটির বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে কাজ করে এ প্রোমোশন কাউন্সিল। দুয়া বলেন, যদি করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে পড়ে, তাহলে ওষুধের তীব্র সংকট তৈরি হতে পারে।

অক্সফোর্ড ইকোনমিকসের প্রধান অর্থনীতিবিদ স্টিফেন ফোরম্যান বলেন, ভারত থেকে ওধুধ সরবরাহ কমলে তার প্রভাব পড়বে পণ্যটির দামে। এরই মধ্যে সরবরাহ হ্রাসে দাম কিছুটা বেড়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের তথ্যমতে, ২০১৮ সালের যুক্তরাষ্ট্রের মোট ওধুধ আমদানির এক-চতুর্থাংশই এসেছে ভারত থেকে। এছাড়া ওষুধের উপাদান ভারত থেকে আসে ৩০ শতাংশের বেশি।

এদিকে মঙ্গলবার দেশটির সরকারি এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, নয়াদিল্লিতে ছয়জনের শরীরে ‘হাই-ভাইরাল লোড’ শনাক্ত হয়েছে। তারা সম্প্রতি রাজধানীতে করোনাক্রান্ত এক ব্যক্তির সান্নিধ্যে এসেছিলেন। মাত্র এক দিনের ব্যবধানে ভারতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ছয় থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৮ জন। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে বেশিরভাগই ইতালীয় নাগরিক, বাকিরা ভারতীয়। গতকাল বুধবার সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..