প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ভারতে এবার স্বর্ণ সংরক্ষণে সীমা নির্ধারণ

শেয়ার বিজ ডেস্ক: ৫০০ ও ১০০০ রুপির নোট বাতিল নিয়ে সমালোচনায় রয়েছে ভারত। এর মধ্যে ব্যক্তিগত স্বর্ণ সংরক্ষণেও সীমা নির্ধারণ করেছে দেশটির সরকার। এখন থেকে ভারতের বিবাহিত নারীরা জ্ঞাত আয়বহির্ভূতভাবে সর্বোচ্চ ৫০০ গ্রাম এবং অবিবাহিত নারীরা ২৫০ গ্রাম পর্যন্ত স্বর্ণ সংরক্ষণ করতে পারবেন। খবর এনডিটিভি

বৃহস্পতিবার ভারতের অর্থ মন্ত্রণালয়ের নতুন কর প্রস্তাবে এ বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এ বিষয়ে ভারতের অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি বলেন, এখন থেকে উত্তরাধিকার সূত্রে পাওয়া স্বর্ণেরও একটি হিসাব থাকতে হবে। এ ধরনের স্বর্ণ রাখার ক্ষেত্রে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ পর্যন্ত কর রেয়াতের ব্যবস্থা থাকবে।

তিনি আরও বলেন, কারো উত্তরাধিকার সূত্রে পাওয়া স্বর্ণের যদি কোনো বৈধ উৎস নাও থাকে, তবুও একজন বিবাহিত নারী সর্বোচ্চ আধা কেজি স্বর্ণ রাখতে পারবেন। আর অবিবাহিত নারীদের ক্ষেত্রে এই সীমা ২৫০ গ্রাম। এই পরিমাণ স্বর্ণের জন্য আলাদা করে কোনো কর দিতে হবে না। এছাড়া নতুন আইনে জ্ঞাত আয়বহির্ভূতভাবে পুরুষদের স্বর্ণ রাখার সীমাও নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। নতুন আইন অনুযায়ী একজন পুরুষ সর্বোচ্চ ১০০ গ্রাম পর্যন্ত স্বর্ণ রাখতে পারবেন।

এদিকে কেন্দ্রীয় সরকারের নতুন এই কর পদক্ষেপ স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের দুশ্চিন্তায় ফেলে দিয়েছে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

সম্প্রতি ভারতে বড় নোট বাতিলের কারণে মুদ্রাসংকটে খুচরা গ্রাহকরা স্বর্ণ কেনা কমিয়ে দিয়েছেন। আগামী মাসে ধাতুটির দাম কমানোর চিন্তাভাবনা করছেন ব্যবসায়ীরা। শুক্রবার ১০ শতাংশ আমদাদি শুল্কসহ প্রতি আউন্স স্বর্ণের দামে প্রিমিয়াম তিন ডলার করা হয়েছে। গত সপ্তাহে এ প্রিমিয়াম ছিল ১২ ডলার, যা দুবছরের মধ্যে সর্বোচ্চ।

ভারতের চেন্নাইয়ের পাইকারি ব্যবসায়ী এমএনসি বুলিয়নের পরিচালক দামান প্রকাশ র‌্যাথড বলেন, নগদ মুদ্রা সংকটে স্বর্ণের খুচরা চাহিদা, বিশেষ করে গ্রাম এলাকায় ব্যাপক হারে কমে গেছে। ব্যবসায়ীরা ধাতুটির চাহিদা বাড়াতে সরকারের হস্তক্ষেপ প্রত্যাশা করছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, কালোটাকার বিরুদ্ধে অভিযানের অংশ হিসেবে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি অভ্যন্তরীণ স্বর্ণ ক্রয়ে বিধিনিষেধ আরোপ করেছেন।

মুম্বাইয়ের পাইকারি ব্যবসায়ীরা জানান, জুয়েলারি ব্যবসায়ীরা নতুন নিয়মের স্বচ্ছতা নিয়ে উদ্বিগ্ন। তাই এখন তারা ধাতুটি ক্রয় কমিয়ে দিয়েছেন।

এদিকে চীনে স্বর্ণ আমদানির লাইসেন্সে সীমাবদ্ধতা আরোপ করতে পারে সরকার, ফলে ধাতুটি সরবরাহে ঘাটতি পড়তে পারে। এ আশঙ্কায় দেশটিতে সম্প্রতি স্বর্ণনের চাহিদা বেড়ে গেছে। ধাতুটির দামে প্রিমিয়াম বেড়ে তিন বছরের মধ্যে সর্বোচ্ছে পৌঁছেছে।