বিশ্ব বাণিজ্য

ভারতে চিনি উৎপাদন কমবে ১২ দশমিক ৩৮

২০১৯-২০ মৌসুম

শেয়ার বিজ ডেস্ক : গত অক্টোবরে শুরু হওয়া ২০১৯-২০ মৌসুমে দুই কোটি ৮০ লাখ থেকে দুই কোটি ৯০ লাখ টন চিনি উৎপাদনের প্রত্যাশা করছে ভারত। আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় এটি ১২ দশমিক ৩৮ শতাংশ বেশি। দেশটির খাদ্য মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা এ তথ্য জানিয়ে বলেছেন, মহারাষ্ট্রে উৎপাদন পতনের ফলে তা সার্বিক উৎপাদনে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে। খবর: ইকোনমিক টাইমস।

২০১৮-১৯ মৌসুমে তিন কোটি ৩১ লাখ টন চিনি উৎপাদিত হয়েছিল। ওই কর্মকর্তা সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে বলেন, যেসব রাজ্যে আখ ভালো হয়, সেসব রাজ্য থেকে তা সংগ্রহ করে চলতি মৌসুমে চিনি উৎপাদনের প্রাক্কালন করা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে ২০১৯-২০ মৌসুমে মোট দুই কোটি ৮০ থেকে দুই কোটি ৯০ লাখ টন চিনি উৎপাদিত হবে।

বন্যা ও খরায় দ্বিতীয় বৃহত্তম আখ উৎপাদনকারী রাজ্য মহারাষ্ট্রে উৎপাদনে পতনের কারণে এবার মোট উৎপাদন আগের বছরের তুলনায় কমবে। ওই রাজ্যে এবার কমপক্ষে ৪০ টন কম চিনি উৎপাদিত হবে। 

দেশটির চিনিকল মালিকদের সংগঠন ন্যাশনাল ফেডারেশন অব কো-অপারেটিভ সুগার ফ্যাক্টরিস গত বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, ১৩ নভেম্বর পর্যন্ত তারা ১০ লাখ ৮০ হাজার টন চিনি উৎপাদন করেছে। যদিও আগের বছরের একই সময়ে উৎপাদন হয়েছিল ১৯ লাখ টন। খবর: ইকোনমিক টাইমস।    

অক্টোবরে শুরু হওয়া মৌসুমে এরই মধ্যে মহারাষ্ট্রে পাঁচ লাখ ৬০ হাজার টন চিনি উৎপাদিত হয়েছে। এছাড়া কর্ণাটকে উৎপাদিত হয়েছে দুই লাখ ৩০ হাজার টন এবং উত্তর প্রদেশে উৎপাদিত হয়েছে এক লাখ ২০ হাজার টন।

ফেডারেশনের তথ্য অনুযায়ী, মহারাষ্ট্রের ১০৩ চিনিকল চিনি মাড়াই শুরু করেছে। অন্যদিকে উত্তর প্রদেশে মাড়াই শুরু করেছে ৪২ চিনিকল। ফেডারেশনের চেয়ারম্যান দিলিপ ওযালস পাটিল বলেন, আমরা আশা করছি ২০১৯-২০ মৌসুমে উত্তর প্রদেশে ১১২ লাখ টন এবং মহারাষ্ট্রে ৯৭ লাখ টন চিনি উৎপাদিত হবে। এছাড়া কর্ণাটক, গুজরাট ও তামিল নাড়–তে যথাক্রমে ৪১ লাখ, ১১ লাখ ও ১০ লাখ টন চিনি উৎপাদনের প্রত্যাশা করা হচ্ছে।  

ইন্ডিয়ান সুগার মিলস অ্যাসোসিয়েশনের (আইএসএমএ) তথ্য অনুযায়ী, ২০১৩-১৪ মৌসুমে ভারতে সব মিলিয়ে দুই কোটি ৪০ লাখ টন চিনি উৎপাদন হয়েছিল। পরের মৌসুমে দেশটিতে পণ্যটির উৎপাদন বেড়ে দাঁড়ায় দুই কোটি ৮৩ লাখ টনে। এর পরের দুই মৌসুমে দেশটিতে চিনি উৎপাদনে মন্দাভাব বজায় ছিল। ২০১৫-১৬ ও ২০১৬-১৭ মৌসুমে দেশটিতে যথাক্রমে দুই কোটি ৫১ লাখ টন ও দুই কোটি ৩২ লাখ ৬০ হাজার টন চিনি উৎপাদিত হয়েছিল।

সর্বশেষ..