প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ভারতে বিতর্কিত কৃষি আইন বাতিলে বিল পাস

শেয়ার বিজ ডেস্ক: অবশেষে ভারতের সংসদের নি¤œকক্ষ লোকসভায় পাস হলো বিতর্কিত কৃষি আইন প্রত্যাহার বিল। কোনো ধরনের আলোচনা ছাড়াই চার মিনিটে পাস হয় বিলটি। দু/এক দিনের মধ্যেই রাজ্যসভায় বিলটি পাস হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এরপর আইনে পরিণত হবে। ফলে গত এক বছরের বেশি সময় ধরে কৃষকদের আন্দোলনের সফলতা দেখতে পাবে। খবর: এনডিটিভি।

ভারতের লোকসভার শীতকালীন অধিবেশনের শুরুতেই গতকাল আলোচনা শুরু হয় কৃষি আইন-সংক্রান্ত বিলগুলো নিয়ে। একপর্যায়ে হইচই শুরু হলে সংসদের দুই কক্ষেই অধিবেশন দুপুর ১২টা পর্যন্ত মুলতবি করে দেন স্পিকার। পরে ফের অধিবেশন শুরু হতেই ‘কৃষি আইন বাতিল বিল, ২০২১’ পেশ করেন দেশটির কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিংহ তোমার। এরপর সেটি পাস হয়। এ সময় বিরোধীরা কৃষি আইনের ওপর আলোচনার যে দাবি করেছিল, তা খারিজ করে দিয়েছে সরকার পক্ষ।

এদিকে, সংসদবিষয়কমন্ত্রী জানিয়েছেন, সোমবারই তিন কৃষি আইন প্রত্যাহার বা বাতিল বিল রাজ্যসভায় পেশ হবে। ২৫ দিন ধরে চলবে ভারতের এ শীতকালীন অধিবেশন। এতে ৩০টির মতো বিল উত্থাপন করা হবে বলে জানা গেছে। অধিবেশনের শুরুর দিনে পাস হলো বিতর্কিত কৃষি আইন প্রত্যাহার বিল। এর আগে ১৯ নভেম্বর বিতর্কিত তিনটি কৃষি আইন বাতিলের ঘোষণা দেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গত এক বছরের বেশি সময় ধরে ওই আইন নিয়ে আন্দোলন করছিলেন কৃষকরা। বিতর্কিত তিনটি কৃষি আইনের বিরুদ্ধে ভারতজুড়ে কৃষক বিক্ষোভ শুরু হয়। কৃষকদের আন্দোলন বিক্ষোভে ঘটে প্রাণহানির ঘটনাও। তবুও রাজপথ ছাড়েননি কৃষকরা। দফায় দফায় বৈঠক হয়েছে কেন্দ্রীয় কমিটির সঙ্গে তবে বিষয়টির সুরাহা হয়নি। কভিড মহামারির মধ্যেও নিজেদের চেষ্টায় আন্দোলন চালিয়ে গেছেন কৃষকরা।

কৃষি এ নতুন আইনের ফলে লোকসানে পড়ার আশঙ্কা করেছিলেন কৃষকরা। ফসল নিয়ে তাদের দর কষাকষির ক্ষমতা কমে যাবে। প্রচলিত ন্যূনতম সহায়ক মূল্য (এমএসপি) পাওয়া থেকেও বঞ্চিত হবেন তারা। পাশাপাশি, বেসরকারি এবং বড় বড় সংস্থাগুলোর কাছে কৃষিপণ্য মজুত রাখার রাস্তাও খুলে যাবে। এসব ইস্যুতে পাঞ্জাব, হরিয়ানাসহ সবকটি রাজ্যের কৃষকরা একাট্টা হয়েছিলেন।